প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ১। আমার কাছে কেউ কোনো টাকা পয়সা বা অন্য কোনো ঝণ পাইলে বা আমি কারো গীবত করলে যে এটা পাবে বা যার গীবত করেছি তাকে যদি সম্পূর্ন কিছু না বলে তার কাছে সকল হক্ক নষ্ট করার বিষয়ে মাফ চাই তাহলে কি মাফ চাওয়া সঠিক হবে? ২। কোনো খাওয়ার অনুষ্ঠানে বিনা দাওয়াতে খেলে কি ধরনের গুনাহ হবে? ৩। যেসব বিয়ের অনুষ্ঠানে বাদ্যযন্ত্র এবং ফটকা, আতশবাজি ফুটানো হয় সে বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করা এবং খাওয়া যাবে কি? ৪। স্টুডেন্ট আইডি কার্ডে যদি ফটো থাকে সেই আইডি কার্ড গলায় ঝুলিয়ে কি নামাজ পড়া যাবে? ৫। রমযান মাসের ২৩,২৫,২৭,২৯ তারিখে বাড়িতে রোযাদারদের নিয়ে যে ইফতারির অনুষ্ঠান করা হয় সেটা কি জায়েয?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। যার গীবত করা হয় তার নিকট যদি ঐ গীবত পৌঁছে থাকে তবে তার নিকট খুলে বলে মাফ চাইতে হবে। আর তার নিকট না পৌঁছে থাকলে আল্লাহ তাআলার নিকট খাঁটিভাবে তাওবা করা ও তার জন্য (যার গীবত করা হয়েছে) মাফ চাওয়াই যথেষ্ট।
রইল ঋণের প্রসঙ্গ, তো ঋণের ব্যাপারে যদি পাওনাদার জেনে থাকে আর মনে মনে মাফ করার সময় এটাও নিয়ত করে থাকে তবে মাফ হয়ে যাবে। তবে যদি এমন কোন ঋণ বা অর্থনৈতিক হক নষ্টের ব্যাপারে উল্লেখিত পদ্ধতিতে ঢালাওভাবে মাফ চাওয়া হয়, যা পাওনাদার জানেন-ই না তবে তা মাফ হবে না। কেননা হতে পারে তিনি জানলে এটা মাফ করতেন না। তাছাড়া না জানলে মাফ-ই বা কিভাবে করবেন। যেহেতু অন্তরের খবর জানা যায় না তাই খুলে বলে মাফ চাওয়ার মধ্যেই সতর্কতা নিহিত।–মিরকাতুল মাফাতীহ ১৪/১৪৫ (শামেলা)

২। হাদীসের ভাষ্য অনুযায়ী সে চোর হয়ে ঢুকল এবং ডাকাত হয়ে বের হল।–সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ৩৭৪৩

৩। এধরনের গুনাহের কাজ হয়ে থাকলে সেখানে না যাওয়া কর্তব্য।

৪। নিম্নোক্ত লিঙ্কে আপনি আপনার উত্তর পেয়ে যাবেন ইনশাআল্লাহ। http://muftihusain.com/ask-me-details/?poId=1330

৫। এমনিতে ছাওয়াবের নিয়তে রোযাদারদের ইফতারির ব্যবস্থা করতে কোন অসুবিধা নেই।

668,622 total views, 1,931 views today