প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম, ইদানীং অনেক ভাই বলে থাকেন, আল্লাহ্ তাআলা কুরআনে আমাদেরকে “মুসলিম” বলে পরিচয় দিতে বলেছেন। কিন্তু কুরআন হাদীসে কোথাও কি নিজেদের কে হানাফী, শাফেয়ী, আহলে হাদীস, দেওবন্দী ইত্যাদি বলে পরিচয় দিতে বলা হয়েছে? দয়া করে তাদের এই প্রশ্নের জবাব কুরআন হাদীসের দলীলসহ দিতে পারলে খুবই উপকৃত হতাম।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
আমরাও তো নিজেদেরকে মুসলিম পরিচয় দিয়ে থাকি। এরপরে কেউ মাযহাব সম্পর্কে জানতে চাইলে তা বলা হয়। এতে দোষনীয় কি আছে? কুরআন বা হাদীসে কি উক্ত শব্দগুলো বলতে নিষেধ করা হয়েছে? এভাবে বুঝুন কেউ নিজের পরিচয় স্পষ্ট করার জন্য বলল সে হেডমাস্টার। এটা কি অপরাধ হয়ে গেল? হেডমাস্টার বলে পরিচয় দেওয়ার কথা তো কুরআনের কোথাও নেই। অনুরূপভাবে ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী, কৃষিজীবী, ছাত্র ইত্যাদি বলে পরিচয় দেওয়ার কথাও তো কুরআনে নেই। তাহলে কি এগুলো বলে পরিচয় দেওয়াও নিষেধ? তাহলে কেউ যদি আমাকে জিজ্ঞাসা করে আপনি কি ব্যবসায়ী সেক্ষেত্রে কি আমি বলব না আমি মুসলমান? কেউ যদি প্রশ্ন করে আপনি এই প্রতিষ্ঠানের কে? আমি কি বলব আমি মুসলমান? তাহলে কি মুসলমান ব্যতীত অন্য সকল পরিচয় দেওয়া নিষেধ?

আসলে দ্বীন বা ধর্মের দিক থেকে আমাদের পরিচয় হল আমরা মুসলমান। আমাদের ধর্মের নাম হল ইসলাম। কিন্তু আমাকে কেউ যদি প্রশ্ন করে আপনি হাফেযে কুরআন নাকি কাযী (মুফতী)? সেক্ষেত্রে তো আমার জবাব উক্ত দুটির একটিই হবে। কেননা সে তো আমার ধর্ম সম্পর্কে জানতে চায়নি। অনুরূপভাবে কেউ যদি বলে আপনি শাখাগত বিষয়ে কার অনুসারী? সেক্ষেত্রে আমি হানাফী মাযহাবের অনুসারী বললে সমস্যা কোথায়?
আসলে আধরনের অবান্তর প্রশ্ন একেবারেই অজ্ঞ লোক করতে পারে।

649,594 total views, 1,820 views today