প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম আমার মেয়ের স্কুলের এক অভিবাবক তার ভাই বোনের যাকাতের টাকা দিয়ে চলেন। গত এক মাস আগে তার ছেলে রোড একসিডেন্ট করে। তাতে করে বেশ খরচ লাগে, এখনও চিকিৎসার জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা লাগবে। খোঁজ নিয়ে জানলাম সবাই সাহায্য করাতে তার একাউন্টে এখন ৭-৮ লক্ষ টাকা জমা পড়েছে। যা তার ছেলের চিকিৎসা কাজে ব্যয় হবে।(যদিও এই শর্তে কেউ টাকা দেয়নি) ১) এই অভিবাবককে কি যাকাতের টাকা দেয়া যাবে? ২) এই ব্যক্তি যাকাত দেয়া না গেলে কবে থেকে তিনি যাকাতের অনুপযুক্ত হলেন? বা হবেন? ৩) যদি উনি শুধু চিকিৎসা কাজে না ব্যয় করেন, তাহলেও যাকাতের হুকুম কি হবে? অথবা যদি জমাকৃত টাকা কেবলমাত্র চিকিৎসার জন্য ব্যয় করতে হবে এরকম শর্তে যাকাতের টাকা দিলে, যাকাত আদায় হবে কিনা? অথবা এরকম শর্ত যদি থেকে যায় তাহলে উনি কি সাহেবে নিসাব ৪২ হাজার টাকা করার সাথে সাথেই হয়ে যাবেন?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। তার মালিকানায় উক্ত টাকা (৭/৮ লক্ষ) জমা হয়ে থাকলে তাকে যাকাত দেওয়া যাবে না।
২। যেদিন থেকে তিনি প্রয়োজন অতিরিক্ত নেসাব পরিমান সম্পদের মালিক হয়েছেন সেদিন থেকে যাকাত গ্রহণের অনুপযুক্ত হয়েছেন।
৩। তিনি যাকাতের উপযুক্ত হলে এবং যাকাত গ্রহন করলে তা যে কোন কাজে ব্যয় করতে পারেন। আর যাকাত নিঃশর্ত আদায় করতে হয়।
সুত্রসমূহঃ ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৮৯; খুলাছাতুল ফাতাওয়া ১/২৪২; ফাতহুল কদীর ২/২৭৮

690,053 total views, 922 views today