প্রশ্ন : প্রশ্ন : আমি ঢাকা থেকে রাজশাহী যাওয়ার নিয়ত করি এক দিনের জন্য। কিন্তু ঐ দিন আর যাওয়া হয়নি। আমি পথিমধ্যে এক আত্মীয়ের বাসায় থেকে যাই। সেখান থেকে পরের দিন রাজশাহীতে যাই এক দিনের জন্য। পরে আবার ঐ আত্মীয়ের বাসায় এক দিন পর চলে আসি এবং রাতে থাকি। এখানে তিনটা স্থান। আত্মীয়-রাজশাহী-আত্মীয়। প্রশ্ন হচ্ছে-কোথায় কোথায় আমি মুসাফির ছিলাম? ১। পথিমধ্যে আত্মীয়ের বাসায়? ২। রাজশাহী যাওয়ার সময় ও আসার সময়? ৩। আবার আত্মীয়ের বাসায় ফিরে আসলাম তখন? বি.দ্রঃ বাসা থেকে আত্মীয়ের বাসার দুরত্ত ১২ কি.মি প্রায়।

উত্তর :

তানকীহ (প্রশ্ন স্পষ্টকরণ): প্রিয় দ্বীনী ভাই, আপনার উত্তরটি দিতে একটু দেরী হয়ে যাওয়ায় আন্তরিকভাবে দুঃখিত।
এখন আরেকটু বিষয় জানা প্রয়োজন। আপনার বাসা কি শীতলক্ষ্যার এপারে নাকি ওপারে? আপনার বাসা কি ঢাকা সিটি কর্পোরেশন ভিতরে নাকি বাইরে?
এটা জানালেই দ্রুত আপনার উত্তর দিয়ে দেওয়া হবে ইংশাআল্লাহ।
তানকীহের উত্তরঃ আমার বাসা হুজুর, ডেমরা সারুলিয়াতে। আমাদের এলাকা হলো ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন এর আওতায়।
মূল উত্তরঃ ১+২+৩। আপনার বাসা ও আত্মীয়ের বাসা এক শহরে হওয়ায় উভয় স্থানে এবং পথিমধ্যে মুকীম থাকবেন। রাজশাহী যেতে আপনি যতক্ষণ গাবতলী ব্রীজ পার না হবেন ততক্ষণ মুকীম থাকবেন। গাবতলী ব্রীজ পার হবার সাথে সাথে পথিমধ্যে আপনি মুসাফির গণ্য হবেন। অনুরূপভাবে রাজশাহী থেকে ফেরার সময় গাবতলী ব্রীজ পার হবার পূর্ব পর্যন্ত মুসাফির থাকবেন। ব্রিজ পার হয়ে গাবতলী প্রবেশ করলে মুকীম হয়ে যাবেন। এরপর ঐ আত্মীয়ের বাসায় গেলেও মুকীম থাকবেন।-ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৩৯,আসারুস সুনান পৃ: ২৬৩।

655,103 total views, 1,090 views today