প্রশ্ন : জমি বন্ধক রাখার শরয়ী মাসআলা জানতে চাই?

উত্তর :

টাকা ঋণ দিয়ে জমি বন্ধক রাখা তো জায়েয। তবে বন্ধকী জমি থেকে কোন প্রকার উপকৃত হওয়া যাবে না। ঋণদাতা তা চাষবাস করতে পারবে না এবং তার ফসলও নিতে পারবে না। তা ফেলে রাখতে হবে। বন্ধকী জমি থেকে কোন প্রকার উপকৃত হওয়ার অর্থ সূদ গ্রহন করা। আর এই সূদী কারবারে জড়িত ব্যক্তির বিরুদ্ধে আল্লাহ তাআলা কুরআনে যুদ্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আজকাল গ্রামের প্রায় অধিকাংশ মানুষই এই সূদী কারবারে জড়িত। তাই এ মাসআলার ব্যাপারে ব্যাপক আলোচনা হওয়া দরকার। আল্লাহ তাআলা সবাইকে হেফাজত করুন।
এর বিকল্প হিসেবে দীর্ঘ মেয়াদী অগ্রিম ইজারার চুক্তি করা যেতে পারে। যেমন পাঁচ/দশ বছরের জন্য জমি ভাড়া নিয়ে নিবে এবং ভাড়া অগ্রিম পরিশোধ করে দিবে। আর প্রতি বছর ভাড়া কর্তন হতে থাকবে। তবে কখনো কোন ওযরের কারণে কোন পক্ষ চুক্তি বাতিল করতে চাইলে উভয়ের সম্মতিতে তা হতে পারে। সেক্ষেত্রে ভাড়া গ্রহীতা মেয়াদের অবশিষ্ট দিনের টাকা ফেরত পাবে।–আল আশবাহ ওয়ান নাযায়ের ১/২৯৩; আল বাহরুর রায়েক ৮/২৪২

658,942 total views, 288 views today