প্রশ্ন : চেয়ারে বসে নামাজের হুকুম বিস্তারিত জানতে চাই?

উত্তর :

চেয়ারে বসে নামাজের সূরতগুলোর হুকুম নিম্নে দেওয়া হলঃ
(১) যে ব্যক্তি দাড়াতে ও রুকু-সিজদা করতে সক্ষম সে জমিনে বা চেয়ারে বসে নামায আদায় করলে তার নামায হবে না। বরং সে দাড়িয়ে যথা নিয়মে রুকু- সিজদার দারা নামায আদায় করবে।
(২) যে ব্যক্তি আরামের জন্য বা সাধারন কষ্টের বাহানায় চেয়ারে বসে নামায পড়ে তার নামায সহীহ হবে না।
(৩) যে ব্যক্তি দাড়াতে ও বসতে সক্ষম কিন্তু রুকু-সিজদাহ করতে অক্ষম তার জন্য দাড়িয়ে কিরাত পড়া জরুরী। অতঃপর সে জমিনে বসে ইশারায় রুকু-সিজদাহ আদায় করবে। এমন ব্যক্তি যদি চেয়ারে বসে ইশারায় রুকু- সিজদাহ আদায় করে তবে তা মাকরূহে তানযীহী বা অনুত্তম।
(৪) যে ব্যক্তি দাড়াতে অক্ষম কিন্তু নিচে বসতে ও সিজদাহ করতে সক্ষম এমন ব্যক্তি চেয়ারে বসে ইশারায় সিজদা করলে তার নামায বাতিল গন্য হবে। তার জন্য নিচে বসে জমিনের উপর সিজদাহ করা জরুরী।
(৫) যে ব্যক্তি দাড়াতে সক্ষম কিন্তু নিচে বসতে অক্ষম এমন ব্যক্তির জন্য দাড়িয়ে কিরাআত পড়া জরুরী। অতঃপর সে চেয়ারে বসে ইশারায় রুকু- সিজদাহ করবে।
(৬) যে ব্যক্তি দাড়াতে ও নিচে বসতে অক্ষম এমন ব্যক্তি পূরো নামায চেয়ারে বসে ইশারায় রুকু-সিজদাহ করবে।
(৭) যে ব্যক্তি দাড়াতে ও রুকু-সিজদাহ করতে অক্ষম কিন্তু নিচে বসতে সক্ষম এমন ব্যক্তি নিচে বসে ইশারার দ্বারা নামায আদায় করবে। যদি সে চেয়ারে বসে ইশারায় নামায আদায় করে তবে তা অনুত্তম বা মাকরূহে তানযীহী।

বর্তমানে চেয়ারে বসে নামায একটি অভ্যাস ও ফ্যাশনে পরিনত হয়ে গিয়েছে। যা পরিহার করা অত্যন্ত জরুরী। এটাকে শুধু মাত্র ঐ ব্যক্তির জন্যই সীমাবদ্ধ করা উচিত যিনি নিচে বসতে অক্ষম। এবং জরুরতকে তার সীমার মধ্যে আবদ্ধ রাখা উচিত।

678,848 total views, 492 views today