মাসআলাঃ যিলহজের ১০,১১ও১২ তিন দিনই কুরবানী করা যায়।তবে ১ম দিন অর্থাৎ ১০ তারিখ কুরবানী করা উত্তম। এর পর দ্বিতীয় দিন,অতঃপর তৃতীয় দিন। -রদ্দুল মুহতার ৬/৩১৬

মাসআলাঃ শহর এবং এমন গ্রামের লেকজন যাদের উপর ঈদের নামাজ ওয়জিব তাদের জন্য ঈদের নামাজের আগে কুরবানী করা জায়েয নয়। তবে কোন ওযরের কারনে যদি ঈদের নামায প্রথম দিন পড়া না হয় তাহলে ঈদের নামাযের সময় অতিক্রান্ত হয়ে গেলে প্রথম দিনেও কুরবানী করা জায়েয। -আদ্দুররুল মুখতার ৬/৩১৮
মাসআলাঃ যেখানে ঈদের নামায জায়েয নয় সেখানে সুবেহ সাদেকের পর থেকেই কুরবানী করা জায়েয।
মাসআলাঃ ১০ও১১ তারিখ দিবাগত রাতে কুরবানী করা জায়েয। তবে অন্ধকারের জন্য জবাইয়ে সমস্যা হলে রাতে জবাই করা অনুত্তম।অবশ্য পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা থাকলে রাত্রে জবাই করতে কোন অসুবিধা নেই। তবে সর্বাবস্থায় দিনে কুরবানী করা উত্তম।- ফাতাওয়া হিন্দিয়া-৫/২৯৬

 526 total views,  1 views today