বুজুর্গানে দীন তাদের অভিজ্ঞতার আলোকে বলেছেন,তিনটি এমন সুন্নাত আছে, যেগুলোর উপর আমল করেত পারলে অন্তরে নূর পয়দা হয় এর দারা অন্য সকল সুন্নাতের উপর আমল করা সহজ হয়ে যায় এবং অন্তরে সুন্নাতের প্রতি আমল করার স্পৃহা জাগ্রত হয়।

১. সহীহ-শুদ্ধ করে আগে আগে সালাম দেওয়া ও সর্বত্র সালামের ব্যপক প্রসার করা। (মুসিলমশরীফ, হাঃ নং ৫৪; তিরমিযী, হাঃ নং ২৬৯৯)
বি.দ্র. السلام (আস-সালামু)এর শুরুর হামযা এবং মীমের পেশ স্পষ্ট করে উচ্চারণ করতে হবে।সালামএর উত্তর শুনিয়ে দেয়া ওয়াজিব। (আলমগিরী,৫:৩২৬)
২.প্রত্যেক ভাল কাজে ও ভাল স্থানে ডান দিককে প্রাধান্য দেওয়া। যথা: মসিজেদ ও ঘরে প্রবেশকালে ডান পা আগে রাখা। পোশাক পরিধানের সময় ডান হাত ও ডান পা আগে প্রবেশ করানো এবং প্রত্যেক নিম্নমানের কাজ ও নিম্নমানের স্থানে বাম দিককে প্রাধান্য দেওয়া। যথা:মসিজদ বা ঘর থেকে বের হওয়ার সময় বাম পা আগে রাখা, বাম হাতে নাক পরিস্কার করা,পোশাক থেকে বাম হাত বা বাম পা আগে বের করা। (বুখারী শরীফ, হাঃ নং১৬৮/ মুসনাদে আহমাদ,হাঃ নং ২৫০৪৩, মুস্তাদরাক,হাঃ নং ৭৯১/মুসিলম শরীফ,হাঃ নং২০৯৭)

৩.বেশি বেশি আল্লাহ তা‘আলার যিকির করা।(সূরায়ে আহযাব, ৪১ , মুস্তাদরাক,হাঃ নং ১৮৩৯)
তাছাড়া
ক. উপের ওঠার সময় আল্লাহু আকবার,নীচে নামার সময় সুবহানাল্লাহ, সমতল ভূমিতে চলার সময় লা-ইলা-হা ইল্লাল্লাহ পড়তে থাকা। (বুখারী শরীফ,হাঃ নং ২৯৯৩/তিরিমযী,হাঃ নং ৩৩৮৩)
খ. প্রতিদিন কুরআনে কারীম থেকে কিছু পরিমাণ তিলাওয়াত করা বা কুরআন তিলাওয়াত শ্রবণ করা।(মুসিলম,হাঃ নং ৭৯১/বুখারী শরীফ,হাঃ নং ৫০৩৩)
গ.পাঁচ ওয়াক্ত নামাযের পর সুন্নাত থাকলে সুন্নাতের পর নতুবা ফরজের পরে তিনবার ইস্তেগগফার,একবার আয়াতুল কুরসী,একবার সূরা ইখলাস, সূরা ফালাক,সূরা নাস এবং তাসবীহে ফাতেমী অর্থাৎ ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ ৩৩ বার আল-হামদুলিল্লাহ এবং ৩৪ বার আল্লাহু আকবার পড়া।(মুসিলম শরীফ,হাঃ নং ৫৯১/ ইমাম নাসায়ীর সুনানে কুবরা,হাঃ নং ৯৮৪৮,তাবারানী কাবীর,হাঃনং ৭৫৩২)
ঘ.সকাল-বিকাল তিন তাসবীহ আদায় করা অর্থাৎ ১০০ বার কালিমায়ে সুওম-সুবহানাল্লাহি ওয়ালহামদুলিল্লাহি ওয়া লা-ইলা-হা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহুআকবার,১০০ বার ইস্তেগফার ও ১০০ বার কোন সহীহ দুরূদ শরীফ পড়া।(মুসিলম শরীফ,হাঃ নং ২৬৯২,২৬৯৫/ ইতহাফ, ৫ : ২৭৫)
ঙ. প্রত্যেক কাজে মাসনূন দু‘আ পড়া।(মুসিলম,হাঃ ৩৭৩/ তিরিমযী শরীফ, হাঃ নং ৩৩৮৪

 5,430 total views,  1 views today