প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। হযরত আশা করি আল্লাহ তা’আলার মেহেরবানীতে ভালো আছেন। হযরত আমি প্রতিদিন চেষ্টা করি আপনার সাইটে একবার ঢুকতে। আমার আপনার সাইট অনেক ভালো লাগে। যাই হোক , হযরত আমার একটি সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন: আমার নিকট আমার মামার দেয়া একটি বিদেশী নোট (ইউরো ৫০০) আছে। যার আজকে ০৬.০৮.১৭ তারিখের মূল্যমান ৪৭৫০০/- টাকা। যদি এই টাকা এবং আমার কাছে আরো আনুমানিক ৫০০০-১০০০০/- টাকা থাকে তবে হিসাব অনুযায়ী কুরবানী দিতে হবে। কিন্তু আমি মামার থেকে আবার ২৫০০০/- টাকা ধার নিয়েছি। এখন কি মাসআলা হবে ? জানালে উপকৃত হব। উল্লেখ্য আমি আপনাকে আল্লাহ তা’আলার জন্য মহব্বত করি। আমার জন্য বরকত এবং আফিয়াতের দোয়ার দরখাস্ত রইল। আল্লাহ তা’আলা আপনাকে অনুরুপ দান করুন। আমীন।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ্

আপনার উপর কুরবানী ওয়াজিব হবে না যদি অন্য প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদ না থেকে থাকে। আর যদি কোন প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদ থাকে তবে উক্ত ইউরো থেকে ঋণের টাকা বাদ দেওয়ার পরে যা অবশিষ্ট থাকে তা উক্ত প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদের সাথে মিলে যদি নেসাব পরিমান হয় তাহলে কুরবানী ওয়াজিব হবে। -রদ্দুল মুহতার ৬/৩১২।

আল্লাহ্‌ তাআলা আপনাকে সমস্ত কল্যাণ নসীব করুন। আমীন।

 829,633 total views,  1,156 views today