প্রশ্ন : ১. হারাম খেলে কত দিন পর্যন্ত এবাদত কবুল হয়না ? ২. ভুলে হারাম খাবার খেলে এর কাফফারা কি ? ৩. বাংলাদেশে হালাল খাবার খাওয়া সম্ভব না, কারণ- যারা কৃষি কাজ করে তারা বেশিরভাগই ব্যাংক থেকে টাকা ঋণ নেয়, এমতাবস্থায় হালাল খাবার কীভাবে খেতে পারি ?

উত্তর :

১। হাদীস শরীফে আছে “কেউ শরাব পান করলে আল্লাহ তাআলা চল্লিশ দিন পর্যন্ত তার নামায কবুল করেন না”।–সুনানে নাসাঈ, হাদীস নং ৫৬৮০
এর দ্বারা উদ্দেশ্য হল এই দিনের নামাযগুলোতে সে কোন ছাওয়াব পাবে না।–আব্দুল মুহসিন,শরহে আবূ দাউদ ১/৪১৭

২। হারাম খাবার খেলে বা হারাম কোন মাল কেউ ব্যবহার করলে তা হুবহু যদি মালিককে পৌঁছানো যায় তবে তাই করবে এবং ইস্তেগফার করবে। অন্যথায় তার মূল্য দিয়ে দিবে। আর যদি মালিক জীবিত না থাকে তবে তার ওয়ারিশদের নিকট তা ফিরিয়ে দিবে। আর তাদেরকেও পাওয়া না গেলে মালিককে ছাওয়াব পৌঁছানোর নিয়তে তা গরীবদের মাঝে সদকাহ করে দিবে।–রদ্দুল মুহতার ৬/৩৮৫; আল বাহরুর রায়েক ৮/৩৫৯

৩। তাদের দায়ভার আপনার পর্যন্ত গড়াবে না। আর এর দ্বারা আপনি সূদী কারবারে জড়িত তাও বলা হবে না।–রদ্দুল মুহতার ৫/২৭২; জাওয়াহিরুল ফিকহ ২/৪৫৩

 829,635 total views,  2 views today