প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম আমি এক দোকানে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে বেতনে নয় percentage এ কাজ করি, যা কাজ হয় তার ৫০% আমার আর ৫০% দোকানের। ১। এখানে অনেক customer দোকানের কাজের টাকা দেওয়ার পরে খুশি হয়ে আমাকে কিছু টাকা দিয়ে যায়, আমি নিতে চাই না তারপরও বলে শুধু এটা আপনার জন্য দোকানের নয়। ২। অনেক সময় customer হোটেলে নিয়ে খাওয়ায়। ৩। customer আমাকে একটা পুরাতন laptop দিয়েছিল। উপরের তিনটা বিষয় যদি জায়েয না হয় তাহলে কীভাবে এর দায়ভার থেকে বাঁচতে পারি ?

উত্তর :

তানকীহ(প্রশ্ন স্পষ্টকরন):
ওয়া আলাইকুমুস সালাম
উক্ত দোকান কি পরিপূর্ণ আপনার দায়িত্তে ছেড়ে দেওয়া? অর্থাৎ ব্যবসা সার্বিকভাবে আপনিই করেন আর পুজিদাতা শুধু লভ্যাংশ বুঝে নেন। বিষয়টি কি এমন? নাকি ব্যবসা মূলত মালিকেরই এবং তিনিও উপস্থিত থাকেন আর আপনার অবস্থান কর্মচারীর মত?
উপরোক্ত বিষয়গুলোর উত্তর পাওয়ার পরেই আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে ইংশাআল্লাহ।

তানকীহের উত্তরঃ
ব্যবসা মূলত মালিকেরই এবং তিনিও উপস্থিত থাকেন আর আমার অবস্থান কর্মচারীর মত।

মূল উত্তরঃ
প্রশ্নে বর্ণিত পদ্ধতিতে কমিশনের ভিত্তিতে দোকানের মালিকের সাথে আপনার উক্ত চুক্তি বৈধ নয়। এক্ষেত্রে আপনার একটি নুন্যতম মুজুরি নির্ধারিত হতে হবে। মুজুরি নির্ধারিত হওয়ার পর চাইলে কমিশনের চুক্তিও করতে পারেন। যেমন এক হাজার টাকা নুন্যতম পারিশ্রমিক নির্ধারণের পর অর্জিত মুনাফার আধা-আধি চুক্তি করলেন। তবে শুধু কমিশনের চুক্তি করা জায়েয হবে না।
আর যদি উক্ত জিনিসগুলো নেওয়ায় পারিশ্রমিকে কোন প্রভাব না পড়ে বরং গ্রাহক এমনিতেই খুশি হয়ে দিয়ে তবে তা আপনার জন্য বৈধ। আর পারিশ্রমিক কমানোর জন্য দিয়ে থাকলে আপনার জন্য উক্ত জিনিসগুলো গ্রহন করা বৈধ হবে না। কেননা এতে মালিকের ক্ষতি হয়।–আদ্দুররুল মুখতার ৬/৪৮; আল বাহরুর রায়েক ৮/৫৫

 829,455 total views,  978 views today