প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ১। আমার এক খালাতো বোন ২ বছর বয়ছে মারা গেছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে সে কি জান্নাতে যাবে? ২। আর জান্নাতে গেলে সে কি তার বাপ মায়ের জন্য সুপারিশ করতে পারবে? কুরআন ও হাদীসের আলোকে ব্যাখা করলে খুব খুশি হতাম।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। মুসলমানদের সন্তান নাবালেগ অবস্থায় মারা গেলে জান্নাতে যাবে।– শরহে মুসলিম, আল্লামা নববী ১৬/২০৭; ফাতহুল বারী ৩/৩৮৭

হযরত আবূ হুরাইরা (রাঃ) থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন-

أولاد المؤمنين في جبل في الجنة يكفلهم إبراهيم و سارة حتى يردهم إلى آبائهم يوم القيامة

অর্থঃ মুমিনদের (নাবালেগ) সন্তানেরা জান্নাতের একটি পাহাড়ে রয়েছে। কিয়ামতের দিন তাদের পিতামাতার নিকট ফিরিয়ে দেওয়া পর্যন্ত হযরত ইব্রাহীম আলাইহিস সালাম এবং সারা (রাঃ) তাদের দেখাশুনা করবেন।– মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদীস নং ১৪১৮; মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং ৮৩২৪
২। হ্যাঁ, পারবে। হাদীস শরীফ দ্বারা এমনটিই বুঝে আসে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন
من مات له ولد فصبر واحتسب قيل له : ادخل الجنة بفضل ما أخذنا منك

অর্থঃ যার কোন সন্তান মারা যায় অতঃপর সে সবর করে এবং ছাওয়াবের আশা রাখে তাকে বলা হবে, আমি তোমার নিকট থেকে যা ছিনিয়ে নিয়েছি তার প্রতিদানসরূপ জান্নাতে প্রবেশ কর।–উসদুল গবাহ ২/১২২; আল ইসতিআব ফি মারিফাতিল আসহাব ১/১২২

অন্য হাদীসে রয়েছে ঐ ভ্রুনও কিয়ামতের দিন তার পিতামাতার জন্য সুপারিশ করবে যা পূর্ণাঙ্গ রূপ নেওয়ার পূর্বেই পড়ে যায়। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন-

إن السقط ليراغم ربه إذا أدخل أبويه النار . فيقال أيها السقط المراغم ربه أدخل أبويك الجنة . فيجرهما بسرره حتى يدخلهما الجنة
অর্থঃ অকালপ্রসূত ভ্রুন (কিয়ামতের দিন) তার প্রতিপালকের সাথে বাদানুবাদ করবে যখন তার পিতামাতাকে জাহান্নামে প্রবেশ করানো হবে। তখন (ভ্রূণকে) বলা হবে, হে আপন প্রতিপালকের সাথে ঝগড়াকারী ভ্রুন, তোমার পিতামাতাকে জান্নাতে প্রবেশ করাও। অতঃপর সে তার নাড়ী দ্বারা তাদেরকে টেনে জান্নাতে প্রবেশ করাবে।–সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ১৬০৮

 831,235 total views,  454 views today