প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ১। হুজুর আমার প্রশ্ন যদি কোন ব্যক্তি নিজে নিজেই এই ভাবে কসম করে যে, আল্লাহর কসম আল্লাহ তা’য়ালা আমাকে হজ্জ্ব না করিয়ে অথবা আমাকে এই পরিমান সম্পদের মালিক না করে অথবা আমার মনের কোন হালাল বাসনা পূরণ না করে মৃত্যু দিবেন না। তাহলে এর হুকুম কি? কাফফারা দিতে হবে কি? ২। যদি কোন কসম ভঙ্গ হয় তবে তার কাফফারার টাকা কোন একজন মিসকীনকে দিয়ে দিলে আদায় হবে কি? ৩। বর্তমানে মিসকীন বুঝা মুশকিল তাই রাস্তা ঘাটের গরীব ভিক্ষুককে কাফফারার টাকা দিয়ে দিলে তা আদায় হবে কি?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। এর দ্বারা কসম সংঘটিত হয়নি।–রদ্দুল মুহতার ৩/১৪২; আহসানুল ফাতাওয়া ৫/৪৯৮

২। কসমের কাফফারার টাকা (১৬৬২ গ্রাম আটার মূল্য) দশজন ফকীর বা মিসকিনকে প্রত্যেককে একটি করে দিতে হবে। আর একজনকে দশটি কাফফারার টাকা দিতে চাইলে প্রতিদিন একটি করে পর্যায়ক্রমে দশদিনে দশটি দিতে হবে। একদিনেই একজনকে দশটি কাফফারার টাকা দিলে একটি কাফফারা আদায় হবে।-আল বাহরুর রায়েক ৪/৩১৬

৩। যদি সে বাস্তবেই গরীব হয় তবে দেওয়া যায়। এগুলো এলাকার স্থানীয় জানাশোনা গরীবকে দেওয়া উচিত যাতে কোন সন্দেহ না থাকে।

 827,100 total views,  368 views today