প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ১। clash of clans গেম খেলা যাবে কি? আমি যদি গেম খেলা বাদ দিয়ে অন্য জনকে গেম এর আইডিটা দিয়ে দেই তাহলে কি গুনাহ হবে। ২। বোবা ধরার কারন ও প্রতিকার সম্পর্কে কিছু বললে উপকৃত হতাম। ৩। পানি পান করার দুআ কি? আর মেসওয়াক করার কোন দুআ আছে কি?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। না, খেলা যাবে না। কম্পিউটার গেমসগুলোতে দ্বীনী বা দুনিয়াবী কোন ফায়েদাহ নেই। তাছাড়া এ ধরণের গেমসগুলোতে অনেক নাজায়েয জিনিসের সন্নিবেশ ঘটে থাকে। যেমন প্রাণীর ছবি, গান-বাজনা, অশ্লীল ছবি, নামাযসহ বিভিন্ন ইবাদাতে বিঘ্ন সৃষ্টি করা, নেশায় পরিণত হওয়া, সময় ও অর্থের অপচয়, কোমলমতি শিশু কিশোরদের মাঝে ধ্বংসাত্মক ও হিংস্র মানসিকতা তৈরি করা ইত্যাদি। এছাড়াও এগুলোতে আরো অনেক আপত্তিকর দিক রয়েছে।– সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ২৫১৫; তাকমিলাতু ফাতহিল মুলহিম ৪/৪৩৪,৪৩৫;

২। এ বিষয়ে আমার কোন ধারনা নেই। কোন বিজ্ঞ মুদাব্বিরের (যারা তদবীর করেন) সাথে পরামর্শ করতে পারেন। আর রাতে ঘুমানোর পূর্বে সূরা ইখলাছ, নাস ও ফালাক পড়ে সারা শরীরে দম (হাতে ফুঁ দিয়ে সারা শরীরে বুলিয়ে দেওয়া) করতে পারেন। এর পাশাপাশি আয়াতুল কুরসী পড়তে পারেন। ইংশাআল্লাহ সমস্যা দূর হয়ে যাবে।–সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ৩২৭৫, ৫০১৭

৩। পানি তিন শ্বাসে পান করা সুন্নাত। প্রতি শ্বাসের শুরুতে বিসমিল্লাহ এবং শেষে আল হামদুলিল্লাহ পড়া সুন্নাত। সর্বশেষে এই দুআটিও পড়তে পারেন-
الحَمْدُ لله الَّذِي سَقَانَا عَذْباً فُرَاتاً بِرَحْمَتِهِ وَلَمْ يَجْعَلْهُ مِلْحاً أُجَاجاً بِذُنُوبِنَا
-আল-মু’জামুল কাবীর,ত্বাবারানী,হাদীস নং ১০৪৭৫; আল-মু’জামুল আউসাত, ত্বাবারানী, হাদীস নং ৮৪; হিলয়া, আবু নুআইম, হাদীস নং ১১৯২৪; শুআবুল ঈমান,বাইহাক্বী,হাদীস নং ৪৪৭৯

আর মিসওয়াক করার বিশেষ কোন দুআ নেই। বিসমিল্লাহ বলে শুরু করবেন।

 831,807 total views,  171 views today