প্রশ্ন : আস্‌সালামু আলাইকুম আমি ড্রাইভিং এ প্রাইভেট কারে কর্মরত আছি। আমার স্যার কর আইনজীবি বা ইনকাম ট্যাক্স এর উকীল। আমার স্যার মাসিক বেতনভুক্ত মুনাফা নিচ্ছেন। উনাদের কাজ হচ্ছে বড় বড় শিল্পপতি ও কোটিপতিদের প্রতি বছরের ট্যাক্স বিভিন্ন কায়দায় পরিশোধ করা। আমার প্রথম প্রশ্ন, আমার মাঝে মাঝে সন্দেহ হয়, আমার বেতন, হালাল নাকি হারাম জড়িত? দ্বিতীয় প্রশ্ন, যেহেতু আমার পেশা ড্রাইভিং, নামায ক্বাযা খুব কমই হয়, মাঝে মধ্যে নামাযের ওয়াক্তের শেষ পর্যায়ে নামায পড়ার সুযোগ পাই। মানে আছর নামায পড়ার পড় মাগরিবের ওয়াক্তের ও মাগরিবের নামায পড়ার পড় এশার ওয়াক্তের দুই এক মিনিট বাকি থাকে। তখন নামাযের নিয়ত কি ক্বাযার করতে হবে নাকি ক্বাযার নিয়ত থেকে রেহাই পেয়ে গেছি?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। আপনার মালিকের ইনকামের ব্যাপারে আপনার কোন ধারণা না থাকলে কোন সমস্যা নেই। আর তার হারাম ইনকামের ব্যাপারে আপনি অবগত হলে সেক্ষেত্রে তার অধিকাংশ ইনকাম হালাল না হলে তার নিকট থেকে বেতন নেওয়া বৈধ হবে না। তবে সে যদি কোন হালাল কামাই থেকে আপনার বেতন পরিশোধ করে তবে তা নেওয়া বৈধ হবে। আর তার অধিকাংশ ইনকাম হালাল হলে তার নিকট থেকে বেতন গ্রহন করতে পারবেন।–রদ্দুল মুহতার ৫/৯৮; মাজমাউল আনহুর ২/৫৪৮

২। ওয়াক্তের মধ্যে পড়লে তো ক্বাযার নিয়ত করতে হবে না। তবে আপনি নামাযের ওয়াক্তের ব্যাপারে খুব সতর্ক থাকবেন। যথাসম্ভব সময়মত নামায পড়ে নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

 824,588 total views,  53 views today