প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম মুহতারাম, আমার প্রশ্নটা এড়িয়ে যাবেন না, জানা খুবই জরুরী। ১। আমার আম্মা আমরা পিতাকে ২০১০ সালে তালাক নামা পাঠায় আদালতের মাধ্যমে এবং আমার পিতা তা স্বাক্ষর করে রেখে দেয়। আমার আম্মা তার নিজ ইচ্ছায় প্রায় ৪/৬ মাস পর ২য় স্বামী বিয়ে করে সংসার করে প্রায় ১ বছর বা তারও বেশি সময়। তারপর সে নিজের ভুল বুঝতে পেরে সে আবার আমার পিতার সাথে বিয়ে করে তার ২য় স্বামীকে ছেড়ে। তারপর প্রায় ৬/৮ মাস পর সে আমার পিতাকে না জানিয়ে চলে যায় তার ২য় স্বামীর কাছে, সেখানে অনেক দিন সংসার করে, তার ২য় স্বামী তাকে কষ্ট দিত। সেখানে সংসার আর করতে পারেনি, অন্য এক ব্যাক্তি তার কষ্ট দেখে তাকে আদালতের মাধ্যমে তালাক দেয়ায় এবং আমার আম্মাকে বিয়ে করে কাজির মাধ্যমে আমার মায়ের সম্মতিতে। এখন ৩য় স্বামির সংসার করছে প্রায় ৩ বছর, এখন আম্মার ৩য় স্বামী তাকে তালাক দিয়ে আমার আব্বার নিকট দিতে চায়। এছাড়া আমার পিতা মাতা উভয় এখন বিবাহ করতে চায়। এখন ইসলামী শরীয়াতে এর হুকুম কী? এখন আমার কি করনীয়? এখন আমি সাবালক হয়েছি। দয়াকরে উত্তর দিবেন। বিঃদ্রঃ আমরা পিতা ও ২য় স্বামীর ঘটনা পর্যন্ত যা ঘটেছে তা আমার আম্মার কথা অনুযায়ী ওনাকে ২য় স্বামী তাবীজ করেছিল। তিনি বলেন তখন যা হয়েছে তা তিনি ইচ্ছাকৃত করেননি এবং কেনো করেছিলেন তাও বলতে পারেন না। আর তখন আমরাও ছোট ছিলাম কি হয়েছে বুঝতে পারিনি। ২। একজন পুরুষ তার স্ত্রীকে তালাক ও সহীহ হালালার মাধ্যমে কুরআন-হাদীসের ভিত্তিতে কতবার গ্রহন করতে পারে?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
আসলে আমি কোন প্রশ্নই এড়িয়ে যাই না। বরং প্রশ্নের আধিক্যের কারনে উত্তর দিতে দেরি হয়ে যায়। এখনো কমপক্ষে ৭৪ টি প্রশ্ন পেণ্ডিং এ রয়েছে। সিরিয়াল অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে কাজ করতে থাকি। এর পরে আবার আমি টাইপে অভ্যস্ত নই। আর আমার কোন সহযোগীও নেই। লম্বা লিখা হলে রায়হান নামক গাজীপুরের আমার এক দ্বীনী ভাই অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে আমাকে সহযোগিতা করেন। তিনি অতি অল্প সময়ে আমাকে টাইপ করে দেন। আল্লাহ তাআলা তাকে জাযায়ে খায়ের দান করুন। মাদরাসার ব্যস্ততা, পরিবার, ব্যক্তিগত প্রয়োজন ও পড়াশোনার পাশাপাশি দৈনিক কমপক্ষে ৫-৭ ঘণ্টা muftihusain.com এর জন্য সময় দিয়ে থাকি। অনেকে আবার ধারনা করেন এটা আমার উপার্জনের একটা মাধ্যম। যা শতভাগ ভুল ধারণা। এর মাধ্যমে যে অর্থ উপার্জন করা যায় তা আমি জানি না। আর কোনদিন জানলেও এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের কোন ইচ্ছা আমার নেই। অনেকে আমাকে পরামর্শ দেন অন্তত এটা পরিচালনার খরচটা আপনি উপার্জন করতে পারেন। আমি তাতেও সম্মত হইনি। muftihusain.com এর একমাত্র উদ্দেশ্য হল দ্বীনের আলো সর্বত্র ছড়িয়ে দেওয়া এবং এটা যেন কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলার নিকট ক্ষমা পাওয়ার একটা অবলম্বন হয়।

১+২। যাই হোক আপনার উত্তরে আসি। এখন প্রথমে দেখার বিষয় হল, আপনার পিতাকে ২০১০ সালে আপনার আম্মা যে তালাকনামা আদালতের মাধ্যমে পাঠিয়েছে তা কার্যকর হয়েছে কিনা? অর্থাৎ উক্ত তালাকনামা দ্বারা আপনার আম্মার উপর শরয়ীত অনুযায়ী কোন তালাক পতিত হয়েছে কিনা? এটা জানতে হলে আপনার আব্বা আম্মার প্রথম বিবাহের কাবিননামা এবং আপনার আম্মার প্রেরিত তালাকনামা প্রয়োজন। এগুলো না দেখে হুকুম বলা সম্ভব নয়। এরপরে যে জিনিসগুলো জানা প্রয়োজন তা হল-
ক। প্রথম তালাকটি কার্যকর হলে কার্যকর হওয়ার পর পূর্ণ তিন হায়েয অতিক্রান্ত হলে আপনার আম্মা দ্বিতীয় স্বামীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন কিনা? এরপর আপনি বলেছেন “সে আবার আমার পিতার সাথে বিয়ে করে তার ২য় স্বামীকে ছেড়ে” এখন প্রশ্ন হল এই দ্বিতীয় স্বামীকে ছাড়ার ধরন কি ও কেমন ছিল? যদি তালাকের মাধ্যমে এসে থাকে তবে তালাক কার্যকর হওয়ার পর ইদ্দত অতিক্রান্ত হলে বিবাহ করেছিল নাকি তার পূর্বেই? সেগুলোর ডকুমেন্ট দেখা প্রয়োজন।

খ। এরপর আবার ৬/৮ মাস পর সে আপনার পিতাকে না জানিয়ে চলে যায় তার ২য় স্বামীর কাছে। এই যাওয়াটা কিভাবে হয়েছিল? তালাকের মাধ্যমে? আর তার সাথে কি কোন বিবাহ হয়েছিল? হলে তা কি ইদ্দতের (অর্থাৎ পূর্ণ তিন হায়েয অতিক্রান্ত হওয়া) পরে না পূর্বে? সেগুলোর ডকুমেন্ট দেখা প্রয়োজন।

গ। এরপর আপনার মায়ের আদালতের মাধ্যমে দ্বিতীয় স্বামীকে তালাক দেওয়ার কাগজপত্র দেখা প্রয়োজন। এবং তাদের দ্বিতীয় বিবাহের কাবিননামা দেখা প্রয়োজন।

ঘ। এরপর জানা প্রয়োজন আপনার আম্মাকে তৃতীয় ব্যক্তি তালাক সহীহ হলে তা কার্যকর হওয়ার কতদিন পরে বিবাহ করেছিল? পূর্ণ তিন হায়েয অতিক্রান্ত হওয়ার পর?
এগুলো জানার পরেই আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়া সম্ভব।

 822,262 total views,  259 views today