প্রশ্ন : হুজুর আমার সালাম নিবেন। আমি আপনার একজন ভক্ত। প্রায় সময় আপনার সাইটে ঢুকে আপনার দেয়া প্রশ্নোত্তর গুলো পড়ি। এতে আমার অনেক ফায়দা হয়। জাযাকাল্লাহু খাইরান। এখন আমার একটি প্রশ্ন মনে উদয় হয়েছে। প্রশ্নটি হলো আমি আপনার সাইটে বিবাহ, স্ত্রী ছাড়া অন্যভাবে খায়েশ পুরা করা সংক্রান্ত অনেক মাসআলা পড়লাম এবং ‍বুঝতে পারলাম যে, বর্তমানে স্ত্রী ছাড়া অন্য উপায়ে পুরুষদের খায়েশ পুরা করার আর কোন পন্থা নেই। হুজুর আমিও চাকরি করি। তাই যদি একটি বুদ্ধি করি (ভুল হলে ক্ষমা দৃষ্টিতে দেখবেন যেহেতু আমাদের এতটা দ্বীনের বুঝ নেই) যে, আমি আমার এক মেয়ে কলিগকে বিবাহ করি এবং তাকে অল্প মোহর যা সাথে সাথে পরিশোধে করে দেই এবং তার সাথে থাকতে থাকি। যখন প্রয়োজন হবে বা অফিস পরিবর্তন হবে বা অন্য কোন সমস্যা হবে তখন তাকে তালাক দিয়ে দিলাম। এভাবে করা যাবে কি? যদি করা যায় তবে একে বারে যা না দিলেই নয় এরকম সর্বনিম্ম মোহর বর্তমানে কত হবে? উল্লেখ্য আমার এক কলিগ অনেকটা রাজি আছে। কারণ সে আমাকে পছন্দ করে এবং আমার সাথে খায়েশ মিটাতে চায় কিন্তু গুনাহের ভয়ে পারছি না। জানালে খুবই উপকৃত হব। অনুগ্রহ করে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
বিবাহ একটি স্থায়ী জীবন ব্যবস্থার নাম। বিবাহের সময়ই একটি নির্দিষ্ট মেয়াদান্তে তালাক দেওয়ার নিয়ত করা শরয়ী চাহিদার খেলাফ। এই নিয়তে বিবাহ করা মাকরূহ। যদিও বিবাহের সময় এমন কোন শর্ত না করা হলে এবং দুজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে মোহর ধার্য করত ঈজাব কবূলের মাধ্যমে বিবাহ করলে তা সহীহ হয়ে যায়।
তাই আপনি অবিবাহিত হলে স্থায়ী চিন্তা করুন। আর বিবাহিত হলে স্ত্রীকে আপনার সাথে রাখার ফিকির করুন।–ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৮৩; রদ্দুল মুহতার ২/৩১৯; ফিকহী মাকালাত ১/২৫৭, ২৫৮
আপনি এই লিঙ্কটিও ভিজিট করতে পারেন-
http://muftihusain.com/ask-me-details/?poId=1671

 833,921 total views,  69 views today