প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। সম্মানিত মুহতারাম। আমি একটি যৌথ কোম্পানিতে চাকরি করি। আমাদের কোম্পানির মালিক মোট ৬ জন। তাদের সকলের একত্রিত টাকার মাধ্যমে কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এখন অনেক সময় আমি নিজের প্রয়োজনে কোম্পানির অনেক কিছু বাড়িতে নিয়ে যাই অথবা অনেক সময় নিজের প্রয়োজনে টাকা খরচ করি। যা পরে কোন একজন মালিকের নিকট থেকে বলে দেই এবং সে যদি অল্প ও সঙ্গত মনে করে তবে মাফ করে দেন। যেমন: একবার কাপড় আয়রন করার জন্য প্রায় ১০-১২ হাত তার নিয়ে ছিলাম যা আমাদের একজন মালিককে বললে সে বললো ঠিক আছে সমস্যা নেই। এরপর একবার কোম্পানির একটি অনুষ্ঠানের জন্য চুল কাটি ও নিজের সাজ সজ্জার জন্য আরো ১৫০ টাকার মত খরচ করি। যা আমি একজন মালিকের কাছে বললে সে বললো ঠিক আছে সমস্যা নেই। তো আমার প্রশ্ন যদি আমি এই রকমের খরচ করি এবং তা কোন একজন মালিকের কাছ থেকে বলে নেই বা পরে বলে দেই এবং সে মাফ করে দেয় তবে তা সহীহ হবে কিনা? কারণ যেহেতু মালিক ৬ জন আর সব সময় ৬ জনের কাছে একই কথা বলা বা মাফ চাওয়া সম্ভব হয় না। আমার জন্য কি করণীয়?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
নিজের প্রয়োজনে কোম্পানির জিনিসপত্র বাড়িতে নেওয়া অন্যায়। এটা তো চুরি করে পরবর্তীতে মাফ চেয়ে নেওয়ার শামিল। তাই কোম্পানির জিনিসপত্র আপনি পূর্ব অনুমতি ব্যতীত ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করা অথবা বাসায় নেওয়া থেকে বিরত থাকবেন। তবে কোম্পানির নীতিমালা অনুযায়ী কোন বিষয় অনুমোদিত হলে সেটা ভিন্ন কথা।
আর অনুমতির বিষয়ে কোম্পানির নীতিমালাই মূল। অর্থাৎ মালিকদের মাঝে যদি এমন কোন সমঝোতা থাকে যে, এরকম বিষয়ে কোন একজন মালিক অন্যের পক্ষ থেকে অনুমতি দিতে পারে তবে একজনের অনুমতি নিলেই চলবে। অন্যথায় নিজ প্রয়োজনে কোন কিছু নিলে সকল মালিকের নিকট থেকেই অনুমতি নিতে হবে। কেননা যৌথ মালিকানার ভিত্তিতে গঠিত কোম্পানির প্রত্যেক অংশে সকল মালিকের মালিকানা প্রতিষ্ঠিত। এক্ষেত্রে কোন একজন মালিক অন্যের পক্ষ থেকে অনুমতি দিলেও তা বৈধ হবে না। কেননা একজনের মাল অন্য কেউ অনুমতি দিলে তা বৈধ হয় না।–সুনানে বাইহাকী, হাদীস নং ১৭২০৩; সুনানে দারাকুতনী, হাদীস নং ২৯২৩

 827,890 total views,  405 views today