প্রশ্ন : রমযান মাসে রোযা থেকে যারা ইচ্ছে করে নামায আদায় করে না, তাদের ব্যাপারে আমাদের নবীজী কি বলেছেন?

উত্তর :

ইচ্ছাকৃত নামায ছেড়ে দেওয়া অনেক বড় গোনাহের কাজ বরং কুফরী। আর রোযা রেখে গুনাহ করা আরো বড় অন্যায়। রোযা রেখে গুনাহ করলে রোযার ছাওয়াব নষ্ট হয়ে যায়। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন-
الصَّوْمُ جُنَّةٌ مَا لَمْ يَخْرِقْهَا
অর্থঃ রোযা ঢাল যতক্ষণ না তা (গুনাহের দ্বারা) বিদীর্ণ করে ফেলা হয়।–সুনানে নাসায়ী, হাদীস নং ২২৩২
অন্য হাদীসে আছে-
الصِّيَامُ جُنَّةٌ وَإِذَا كَانَ يَوْمُ صَوْمِ أَحَدِكُمْ فَلَا يَرْفُثْ وَلَا يَصْخَبْ فَإِنْ سَابَّهُ أَحَدٌ أَوْ قَاتَلَهُ فَلْيَقُلْ إِنِّي امْرُؤٌ صَائِمٌ
অর্থঃ রোযা হচ্ছে ঢাল। যখন তোমাদের কেউ রোযা থাকে সে যেন অশ্লীল কথাবার্তা না বলে এবং মূর্খের ন্যায় কাজ না করে। কেউ যদি তাকে গালি দেয় বা ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হয় তাহলে সে যেন বলে, আমি রোযাদার।-সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ১৯০৪
অন্য হাদীসে আছে-
مَنْ لَمْ يَدَعْ قَوْلَ الزُّورِ وَالْعَمَلَ بِهِ فَلَيْسَ لِلَّهِ حَاجَةٌ فِي أَنْ يَدَعَ طَعَامَهُ وَشَرَابَهُ
অর্থঃ যে ব্যক্তি মিথ্যা কথা ও মন্দ কাজ বর্জন করল না তার পানাহার বর্জনে আল্লাহর কোনো প্রয়োজন নেই।-সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ১৯০৩
অন্য হাদীসে আছে-
رب صائم ليس له من صيامه إلا الجوع . ورب قائم ليس له من قيامه إلا السهر
অর্থঃ অনেক রোযাদার ব্যক্তি এমন আছে, যাদের রোযার বিনিময়ে অনাহারে থাকা ব্যতীত আর কিছুই লাভ হয় না। আবার অনেক রাত্রি জাগরণকারী এমন আছে, যাহাদের রাত্রি জাগরণের কষ্ট ছাড়া আর কিছুই লাভ হয় না।–সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ১৬৯০; সহীহ ইবনে খুযাইমা, হাদীস নং ১৯৯

 828,416 total views,  931 views today