প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। প্রশ্ন ১। আমার একটি রেস্তরাঁ আছে যা ভাড়ায় চালিত। যার জামানত/ advance বাবদ আমি দোকানের মালিককে ৩ বছরের জন্য টাকা দিই। হযরতের কাছে আমার প্রশ্ন হল উক্ত টাকার উপর কি আমাকে যাকাত দিতে হবে। প্রশ্ন ২। আমার একজন কর্মচারী আছে যার বাবা মা কেউ নেই। ওর বয়স ২০ বছর। ছেলেটি আমার কাছে থাকে। ওর দায় দায়িত্ব সব কিছু আমি নিয়েছি এবং ওর বেতন বাবদ যা টাকা পায় সব টাকা আমার কাছে জমা আছে প্রায় ২০০০০০ টাকা। ওর এটা সম্পর্কে কোন ধারনা নেই। হযরতের কাছে আমার প্রশ্ন হল উক্ত টাকার উপর কি যাকাত দিব এবং ফেতরা কি দিব?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। হ্যাঁ, উক্ত টাকা ফেরতযোগ্য হলে তার যাকাত আপনাকে আদায় করতে হবে। তবে এক্ষেত্রে টাকা হস্তগত হবার পরেও যাকাত দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু হস্তগত হবার পরে (কয়েক বছরের যাকাতের) পরিমান বেশি হওয়ায় অনেক ক্ষেত্রে তা দেওয়া কষ্টসাধ্য হয়। তাই প্রতি বছর নিয়মমত দিয়ে দেওয়াই ভালো।–রদ্দুল মুহতার ২/৩০৫; ফাতওয়ায়ে দারুল উলূম দেওবন্দ ৬/৭৭
২। উক্ত টাকা আপনি ঐ ছেলেটিকে না বুঝিয়ে দিয়ে থাকলে তার মালিক আপনি। আর প্রশ্ন থেকে তাই বুঝে আসে। কেননা আপনি লিখেছেন এ ব্যাপারে তার কোন ধারনা নেই। সেক্ষেত্রে ঐ পরিমানের যাকাত আপনার উপরেই আসবে। তবে তাকে তা বুঝিয়ে দেওয়ার পর সে যদি তা আপনার নিকট পুনরায় আমানত রাখে তাহলে তার যাকাত উক্ত ছেলেটিকে দিতে হবে।
আর ফেতরার সম্পর্ক নেসাবের সাথে। যে প্রয়োজন অতিরিক্ত নেসাব পরিমাণ সম্পদের মালিক হবে তার উপর ফেতরা দেওয়া ওয়াজিব।–ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৭২; আদ্দুররুল মুখতার ২৫৯,২৬০

 827,982 total views,  497 views today