প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম, কিছু প্রতিবন্ধি লোক রাস্তায় বসে কুরআন শরীফ পড়ে, কিন্তু তাদের উদ্দেশ্য থাকে টাকা। প্রায় মানুষই তাকে টাকা দিয়ে থাকে। “তাকে বলতে চেয়েছিলাম যে, ভিক্ষা কর ঠিক আছে কিন্তু এভাবে কুরআন পড়ে টাকা নেয়া ঠিক না।” একথা বলেও বললাম না, কারণ আমার জানা নাই এভাবে পড়ে টাকা হাদিয়া নেয়া জায়েয কিনা? ১। যদি জায়েয না হয়, তাহলে আমাকে কিছু কুরআন/হাদীস এর রেফারেন্স দিন যাতে করে তাদেরকে উক্ত কাজে বাধা দিতে পারি। ২। আপনার সম্মুখে এরকম লোক পড়লে যা যা নসিহত করতেন তাও লিখে দিবেন যাতে তাদেরকে আমি বলতে পারি।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

এটা একটা জঘন্যতম গোনাহ। এর দ্বারা কুরআনের অনেক বড় অবমাননা হয়। এ থেকে বিরত থাকা জরুরী। হাদীস শরীফে বর্ণিত আছে-

عن الحسن بن أبي الحسن قال  كنت أنا و عمران بن حصين بالبصرة فمر بإنسان أعمى يقرأ سورة يوسف فقمنا نسمع فلما فرغ من قرائته سأل فاسترجع عمران بن الحصين ثم قال : امض بنا إني سمعت رسول الله صلى الله عليه و سلم يقول : من قرأ القرآن فليسأل الله به فإن بعدكم قوما يقرأون القرآن يسألون الناس به

অর্থঃ হযরত হাসান ইবনে আবুল হাসান (রহঃ) বলেন, আমি এবং হযরত ইমরান বিন হুসাইন (রাঃ) বসরায় ছিলাম। একদা তিনি এক অন্ধ ব্যক্তির নিকট দিয়ে গমন করলেন যে সূরা ইউসূফ তিলাওয়াত করছিল। আমরা দাঁড়িয়ে গেলাম শুনার জন্য। সে কিরাআত শেষ করে ভিক্ষা চাওয়া শুরু করল। তখন ইমরান বিন হুসাইন (রাঃ) ইন্নালিল্লাহ পড়লেন। অতঃপর বললেন, চল, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি, যে ব্যক্তি কুরআন তিলাওয়াত করে সে যেন তা দ্বারা আল্লাহ তাআলার নিকট চায়। নিশ্চয়ই তোমাদের পর এমন জাতি আসবে যারা কুরআন পাঠ করে মানুষের নিকট চাইবে।-তাবারানী, আল মুজামুল কাবীর ১৮/১৬৬ (শব্দগুলো তার); সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং ২৯১৭; মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং ১৯৮৮৫

অন্য হাদীসে রয়েছে-

عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ شِبْلٍ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اقْرَءُوا الْقُرْآنَ وَلَا تَأْكُلُوا بِهِ

অর্থঃ হযরত আব্দুর রহমান শিবল (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, তোমরা কুরআন পড় কিন্তু এর দ্বারা তোমরা ভক্ষণ করো না।–মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং ১৫৫৩৫; সুনানে বাইহাকী, হাদীস নং ২৩৬২

 

 

 826,664 total views,  1,024 views today