প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। গত দিন আমার আব্বার সাথে আমার স্ত্রী প্রচন্ড ঝগড়া হয়। আমার আব্বা আমাকে আমার স্ত্রী ছেড়ে দিতে বলেছেন। আমার জন্য এখন কি করণীয়?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ

কোন স্ত্রী যদি তার শ্বশুর শাশুড়িকে কষ্ট দেয় এবং তাদের সাথে খারাপ আচরণ করে আর পিতামাতা উক্ত স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার কথা বলে, তবে তালাক দেওয়া ব্যতীত অন্য কোন পথ বাকি না থাকলে, পাশাপাশি তাকে তালাক দিলে যিনায় পতিত হওয়ার আশংকা না থাকলে, স্ত্রীকে তালাক দেওয়া উচিত।

হযরত আব্দুল্লাহ বিন উমর রাযি. থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন-

كَانَتْ لِي امْرَأَةٌ كُنْتُ أُحِبُّهَا، وَكَانَ أَبِي يَكْرَهُهَا، فَقَالَ لِي: طَلِّقْهَا، فَأَبَيْتُ، فَأَتَى رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَذَكَرَ ذَلِكَ لَهُ، فَقَالَ: «طَلِّقْهَا» فَطَلَّقْتُهَا

অর্থঃ আমার একজন স্ত্রী ছিল। যাকে আমি ভালবাসতাম। কিন্তু আমার পিতা [হযরত উমর বিন খাত্তাব রাযি. যৌক্তিক কারণে] তাকে পসন্দ করতো না। তিনি আমাকে বললেন, তাকে তালাক দিতে। কিন্তু আমি তালাক প্রদান করতে অস্বীকৃতি জানালাম। তখন আমার পিতা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে বিষয়টি উপস্থাপন করলে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, তাকে তালাক দিয়ে দিতে। ফলে আমি আমার স্ত্রীকে তালাক প্রদান করি।-সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-৫১৩৮

আর যদি স্ত্রীর কোন দোষ না থাকে এবং পিতামাতা খামাখা বা জিদের বশবর্তী হয়ে তাকে তালাক দিতে বলে, তবে সেক্ষেত্রে পিতামাতার কথা শোনা জরুরী নয়। বরং এমতাবস্থায় তালাক দেওয়া নিঃসন্দেহে জুলুম এবং মাকরূহে তাহরীমী।–রদ্দুল মুহতার ৩/২২৯; ফাতওয়ায়ে দারুল উলূম দেওবন্দ ৯/৩৯

 

 829,470 total views,  993 views today