প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। হুজুর আমি আপনার একজন শুভাকাঙ্খি। হুজুর আমি একটি প্রসিদ্ধ কোম্পানিতে চাকরি করি। আমি অফিসে বিভিন্ন রকমের কাজ করি। আমাদের যে ম্যানেজার রয়েছে তিনি একটু অন্য রকম। যারা তার সাথে খাতির রাখে, তিনি তাদেরকে অফিস কর্তৃক বিভিন্ন রকমের সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকেন। খাতির রাখা বলতে তাকে হুন্ডায় করে তার বাড়ি থেকে নিয়ে আসা, তার কোন প্রয়োজনে তার হয়ে কাজ করা যেমন ঢাকায় যদি তার কোন প্রয়োজন থাকে তবে তা করে দিয়ে আসলাম, তার স্ত্রীকে, সন্তানকে অথবা তাকেই হাদিয়া তওফা দিলাম ইত্যাদি ইত্যাদি। কিন্তু আমি কখনোই এগুলো পছন্দ করি না। তাই সে আমার ব্যাপারে কোন সুযোগ দিতে চায় না। যেমন: গত কিছু দিন আগে তার খাতিরের একজন অফিসের একটু কাজ তার হুন্ডা দিয়ে করে দেয়াতে সে অফিসকে বলে তার জন্য ১২০০/- টাকার হুন্ডার হেলমেট কিনে দিয়েছে, যারা তার সাথে খাতির রাখে তারা প্রচুর ছুটি পায় ও মন খুশি মত অফিস করতে পারে, কয়েকদিন আগে বৃষ্টির জন্য যারা ব্যাংকিং করে তাদের কে ৫০০ টাকা দামের ছাতা ক্রয় করে দিয়েছে অথচ আমিও ব্যাংকিং করি কিন্তু আমাকে দেয়নি, যারা খাতির রাখে তারা অফিসের কাজে বাইরে গেলে দুপুর হলেই লাঞ্চ বা দুপুরের খাবার খেয়ে নিতে বলে অথচ আমি বিকাল পর্যন্ত কাজ করলেও আমাকে অফিসে এসেই লাঞ্চ করতে বলে। অফিসের দেয়া আমার মোবাইল নষ্ট হলে তা সার্ভিসিং বাবদ ১০০ টাকা খরচ দিলেও সে তা গ্রহণ করে না । বলে, অফিস মোবাইল দিয়েছে আবার সার্ভিসিং করার খরচ ও দিবে এটা হবে না, মোবাইল নষ্ট হলে নিজের টাকায় ঠিক করবেন। সে বিভিন্ন সময় হিসাব ভুল করে তখন আমি হিসাবের ভুল ধরিয়ে দেই। এভাবে আমি তার অনেক টাকা বাচিয়ে দিয়েছি। কিন্তু এবার চিন্তা করেছি যে, আমি আর তার ভুল ধরিয়ে দিবো না। এতে আস্তে আস্তে যে টাকা আমার কাছে জমা হবে তা দিয়ে অফিসের মোবাইল বা অফিসের অন্য কোন এমন খরচ যা সে আমাকে দিতে চায় না সেই খাতে তা খরচ করবো। এটা আমার জন্য জায়েয হবে কি? জাযাকাল্লাহু খাইরন ফিদ দারাইন।

উত্তর :

 

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

না, আপনার জন্য এটা জায়েয হবে না। আপনি বরং অফিসের ন্যায্য খরচ কর্তৃপক্ষকে জানিয়েই উসূল করে নিবেন। ম্যানেজার কোন ত্রুটি করে থাকলে ঊর্ধ্বতন কারো মাধ্যমে তার সুরাহ করবেন।–সূরা নিসা, আয়াত ৫৮; সুনানে বাইহাকী, হাদীস নং ১৩০৬৫

 

 

 829,469 total views,  992 views today