প্রশ্ন : তায়াম্মুম কখন করতে হবে? তায়াম্মুম করব কিভাবে?

উত্তর :

নিম্নোক্ত কারণগুলোর কোন একটি পাওয়া গেলে তায়াম্মুম করা জায়েয-

১। পানি এক মাইল কিংবা তার চেয়ে বেশি দূরে থাকলে।

২। যদি নিজের প্রবল ধারণা হয় কিংবা অভিজ্ঞ মুসলিম ডাক্তার বলে যে, পানি ব্যবহারে রোগ সৃষ্টি হবে, কিংবা রোগ বৃদ্ধি পাবে, কিংবা আরোগ্য লাভে বিলম্বিত হলে।

৩। ঠাণ্ডা পানি ব্যবহারে প্রান হানীর প্রবল আশঙ্কা থাকলে।

৪। পানি কম থাকা অবস্থায় নিজের অথবা অন্যের পিপাসার আশংকা দেখা দিলে।

৫। পানি তোলার উপকরণ তথা বালতি, রশি ইত্যাদি না থাকলে।

৬। পানি লাভে প্রতিবন্ধক হয় এমন শত্রুর (আক্রমনের) আশংকা হলে। চাই শত্রু মানুষ হোক কিংবা হিংস্র প্রাণী।

৭। উযূ করতে গেলে যদি ঈদের নামায বা জানাযার নামায ছুটে যাওয়ার প্রবল ধারণা হয়। কেননা এসকল নামাযের ক্বাযা নেই। আর যদি প্রবল ধারনা হয় যে, উযূ করতে গেলে নামাযের ওয়াক্ত শেষ হয়ে যাবে, কিংবা জুমার নামায ছুটে যাবে, তাহলে এমতাবস্থায় তায়াম্মুম করা জায়েয হবে না। বরং উযূ করে এসে ক্বাযা নামায পড়বে এবং জুমার পরিবর্তে যোহরের নামায আদায় করবে।

আর তায়াম্মুম কিভাবে করতে হয় তা নিম্নোক্ত লিঙ্কে বিস্তারিত পেয়ে যাবেন ইংশাআল্লাহ-

http://muftihusain.com/ask-me-details/?poId=1797

 822,409 total views,  406 views today