প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। যদি কোন ব্যক্তি ওয়াজিব হওয়ার পরেও কুরবানী না দিয়ে থাকে তবে তার কাযা আদায় করতে হবে কি? করতে হলে কখন করবে, কিভাবে করবে, নিয়ত কি করবে?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ

যদি কেউ কুরবানীর দিনগুলোতে তার ওয়াজির কুরবানী আদায় করতে না পারে তবে পশু ক্রয় না করে থাকলে তার উপর কুরবানীর উপযুক্ত একটি ছাগলের মুল্য ছদকাহ করা ওয়াজিব। আর পশু ক্রয় করার পরেও কোন কারনে কুরবানী করতে না পারলে ঐ পশু জীবিত ছদকাহ করা ওয়াজিব। -কাযীখান ৩/৩৪৫; বাদায়েউস সানায়ে ৪/২০৪

সম্পূরক প্রশ্নঃ কুরবানীর উপযুক্ত ছাগলই যদি ছদকা করি বা কোন মাদ্রাসায় দিয়ে দেই তবে তা আদায় হবে কি?

উত্তরঃ হ্যাঁ, হবে।

খুবই আশ্চর্য হই একটা সাধারন প্রশ্ন করতেও নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর দিতে দিধাবোধ করেন। যদি তালাক, চুরি, আত্মসাৎ ইত্যাদি সংক্রান্ত মাসআলা হত নাজানি কি করতেন? আর সম্পূরক প্রশ্নের স্টাইলও খুবই আশ্চর্যজনক। আপনার মনে হয় আমি হয়তোবা আলিমুল গাইব অথবা শুধুমাত্র আপনার প্রশ্ন নিয়েই বসে থাকি। এত প্রশ্নের মাঝে হুট করে এভাবে কোন ইশারা ইঙ্গিত ছাড়াই সম্পূরক প্রশ্ন করলে কি করে বুঝবো? এভাবে আমাকে পেরেশান করা কি ঠিক?

 828,402 total views,  917 views today