প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। ১। আমার স্বামী কোন কারনে আমাকে তিন তালাক দেন, প্রায় দশ বছর আগে। তারপর থেকে আমাদের মধ্যে কোন স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ক নেই, যদিও সন্তানদের কারনে আমরা একই গৃহে বসবাস করি। বর্তমানে সন্তানেরা সাবালক। আমি চাকরীজীবী এবং নিজের ভরন পোষণে সক্ষম। ২। আমি তালাকপ্রাপ্তা হবার পর একজনের সাথে মৌখিকভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই এবং বিষয়টি আমার ঘনিষ্ট কয়েকজনকে অবহিত করি। কিন্তু ২য় বিয়েতে কোন মোহরানা ধার্য ছিল না। যদিও আমরা একসাথে অবস্থান করি না, কিন্তু আমাদের মধ্যে যোগাযোগ আছে। আমার ২য় বিয়ে কি বৈধ হয়েছে? ৩। আমি জানিনা ইসলামী শরীয়া মতে আমার ক্ষেত্রে সঠিক বিধান কি? দয়া করে জানাবেন। বর্তমানে আমি খুবই চিন্তাযুক্ত আছি এবং মানসিকভাবে বিপর্যস্ত।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

১। এভাবে আপনাদের একত্রে অবস্থান করা জায়েয নয়। এর দ্বারা গুনাহের ও যিনার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। আপনার পূর্বের স্বামীর সাথে দেখা সাক্ষাত ও বিনা প্রয়োজনে কথাবার্তা বলা সম্পূর্ণ নাজায়েয ও হারাম। তাই আপনি হয়তোবা শুধুমাত্র সন্তানদের নিয়ে থাকবেন অথবা (পরের বিবাহ সহীহ হয়ে থাকলে) পরবর্তী স্বামীর নিকট থাকবেন।

২। প্রথম স্বামীর তালাক দেওয়ার পর ইদ্দত পার হয়ে যাবার পরে দুজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে ঈজাব কবূলের মাধ্যমে বিবাহ করে থাকলে তা সহীহ হয়েছে। তবে কোন মোহর ধার্য না থাকলে আপনি মোহরে মিছিল পাবেন। মোহরে মিছিল হল আপনার বংশের বোন, চাচাত বোন বা ফুফুদের সমপরিমাণ মোহর।

৩। আপনি প্রথম স্বামীর সাথে একত্রে অবস্থান করবেন না। তার সাথে আপনার দেখা সাক্ষাত করা সম্পূর্ণ নাজায়েয ও হারাম। দ্বিতীয় স্বামীর সাথে (যদি উপরোক্ত পদ্ধতি অনুযায়ী সহীহভাবে বিবাহ হয়ে থাকে তবে) সংসার করুন।

উল্লেখ্য যে, আপনার দ্বিতীয় স্বামীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক হয়ে থাকলে এবং তিনি আপনাকে সেচ্ছায় তালাক দিলে আপনি পুনরায় প্রথম স্বামীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনারা এমনটিও করতে পারেন, আপনার দ্বিতীয় স্বামী উক্ত মোহর মাফ করার শর্তে আপনাকে তালাক দিবেন। এরপর ইদ্দত পার হবার পরে চাইলে প্রথম স্বামীর সাথে নতুনভাবে মোহর ধার্য করত দুজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে ঈজাব কবূলের মাধ্যমে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেন।

সুত্রসমূহঃ সূরা বাকারাহ, আয়াত ২৩০; সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ২৬৩৯; রদ্দুল মুহতার ১০/৩১ (শামেলা); আল বাহরুর রায়েক ৮/২৫২

 831,562 total views,  781 views today