প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম, যদি কোন ব্যক্তির কাছে তার সম্পূর্ণ জরুরূত মেটানোর পর অবশিষ্ট ৩৫০০০ টাকা হাতে থাকে তবে তার উপর নাকি কুরবানী দেয়া ওয়াজিব। এই মাসআলা কি সঠিক?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

মূল মাসআলা হল ১০ যিলহজ ফজর থেকে ১২ যিলহজ সুর্যাস্ত পর্যন্ত সময়ের মধ্যে কারো নিকট প্রয়োজন অতিরিক্ত সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার মূল্য সমপরিমাণ সম্পদ থাকলে তার উপর কুরবানী ওয়াজিব হবে। তবে যদি কারো নিকট শুধু স্বর্ণ থাকে তাহলে সাড়ে সাত তোলা হতে হবে।

কাজেই ঐ দিনগুলোতে যে পরিমাণ নগদ টাকা হাতে থাকবে তার পুরোটাই নেসাবে গণ্য হবে। নগদ টাকার ক্ষেত্রে সামনে মাস চালানোর জন্য কিছু টাকা রেখে দিলে সেটাও নেসাবে গণ্য হবে। অনুরূপভাবে অন্য যে কোন প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদও নেসাবে গণ্য হবে। যেমন অব্যবহৃত জমি (যেটা থাকা বা চাষাবাদ কোন কাজেই আসে না), টেলিভিশন, এমন কাপড়চোপড় বা আসবাবপত্র যেগুলো সারা বছরেও কাজে আসে না ইত্যাদি। কাজেই আপনি যে মনে করেছেন শুধুমাত্র নগদ টাকা থাকলে কুরবানী ওয়াজিব হবে বিষয়টি এমন নয়। আর আমার তাহকীক অনুযায়ী বর্তমানে সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার বাজারদর ৪২০০০ টাকা। তবে কোন জায়গায় যদি সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার বাজারদর ৩৫০০০ টাকা হয় তবে সেখানে নেসাব ৩৫০০০ টাকাই হবে।-রদ্দুল মুহতার ৬/৩১২

আপনি  প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চাইলে নিম্নোক্ত লিঙ্ক ভিজিট করতে পারেন-

http://muftihusain.com/article/%E0%A6%95%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%80-%E0%A6%B8%E0%A6%82%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4-%E0%A6%9C%E0%A6%B0%E0%A7%81%E0%A6%B0%E0%A7%80/

 828,980 total views,  503 views today