প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম সালাফিরা বলছেন সালাতুল তাসবীহ বলে কিছু নেই, আমরা সন্দেহে পড়ে যাচ্ছি। বিষয়টি পবিত্র কুরআন ও হাদীসের আলোকে একটু বুঝিয়ে বলতেন?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

যুগ যুগ ধরে হাজারো উলামায়ে কেরাম সালাতুস তাসবীহ পড়ে আসছেন এবং পড়ার কথা বলছেন। আর দুদিনের এই সালাফি ভাইদের নতুন কথা শুনে সন্দেহে পড়ে যাচ্ছেন? এটা কেমন কথা? তাহলে সালাফিদের কোন কথা আপনার শুনারই প্রয়োজন নেই। শুনলে এমনিভাবে প্রতিদিন হাজারো বিষয়ে সন্দেহে পড়তে থাকবেন। আর আমাদের হক্কানী উলামায়ে কেরামের প্রতি আপনার এত দুর্বল ধারনাই বা কেন?

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত-

أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- قَالَ لِلْعَبَّاسِ بْنِ عَبْدِ الْمُطَّلِبِ « يَا عَبَّاسُ يَا عَمَّاهُ أَلاَ أُعْطِيكَ أَلاَ أَمْنَحُكَ أَلاَ أَحْبُوكَ أَلاَ أَفْعَلُ بِكَ عَشْرَ خِصَالٍ إِذَا أَنْتَ فَعَلْتَ ذَلِكَ غَفَرَ اللَّهُ لَكَ ذَنْبَكَ أَوَّلَهُ وَآخِرَهُ قَدِيمَهُ وَحَدِيثَهُ خَطَأَهُ وَعَمْدَهُ صَغِيرَهُ وَكَبِيرَهُ سِرَّهُ وَعَلاَنِيَتَهُ عَشْرَ خِصَالٍ أَنْ تُصَلِّىَ أَرْبَعَ رَكَعَاتٍ تَقْرَأُ فِى كُلِّ رَكْعَةٍ فَاتِحَةَ الْكِتَابِ وَسُورَةً فَإِذَا فَرَغْتَ مِنَ الْقِرَاءَةِ فِى أَوَّلِ رَكْعَةٍ وَأَنْتَ قَائِمٌ قُلْتَ سُبْحَانَ اللَّهِ وَالْحَمْدُ لِلَّهِ وَلاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ وَاللَّهُ أَكْبَرُ خَمْسَ عَشْرَةَ مَرَّةً ثُمَّ تَرْكَعُ فَتَقُولُهَا وَأَنْتَ رَاكِعٌ عَشْرًا ثُمَّ تَرْفَعُ رَأْسَكَ مِنَ الرُّكُوعِ فَتَقُولُهَا عَشْرًا ثُمَّ تَهْوِى سَاجِدًا فَتَقُولُهَا وَأَنْتَ سَاجِدٌ عَشْرًا ثُمَّ تَرْفَعُ رَأْسَكَ مِنَ السُّجُودِ فَتَقُولُهَا عَشْرًا ثُمَّ تَسْجُدُ فَتَقُولُهَا عَشْرًا ثُمَّ تَرْفَعُ رَأْسَكَ فَتَقُولُهَا عَشْرًا فَذَلِكَ خَمْسٌ وَسَبْعُونَ فِى كُلِّ رَكْعَةٍ تَفْعَلُ ذَلِكَ فِى أَرْبَعِ رَكَعَاتٍ إِنِ اسْتَطَعْتَ أَنْ تُصَلِّيَهَا فِى كُلِّ يَوْمٍ مَرَّةً فَافْعَلْ فَإِنْ لَمْ تَفْعَلْ فَفِى كُلِّ جُمُعَةٍ مَرَّةً فَإِنْ لَمْ تَفْعَلْ فَفِى كُلِّ شَهْرٍ مَرَّةً فَإِنْ لَمْ تَفْعَلْ فَفِى كُلِّ سَنَةٍ مَرَّةً فَإِنْ لَمْ تَفْعَلْ فَفِى عُمُرِكَ مَرَّةً »

অর্থঃ রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত আব্বাস ইবনে আব্দিল মুত্তালিবকে বলেছেন, হে আব্বাস, হে চাচা! আমি কি আপনাকে দিব না? আমি কি আপনাকে প্রদান করব না? আমি কি আপনার নিকটবর্তী হব না? আমি কি আপনার জন্য এমন দশটি সৎ গুনের বর্ণনা করব না, যা করলে আল্লাহ তাআলা আপনার পূর্বের ও পরের, নতুন ও পুরাতন, ইচ্ছায় ও ভুলবশত কৃত, ছোট ও বড়, গোপন ও প্রকাশ্য সকল গুনাহ মাফ করে দিবেন? সে দশটি সৎ গুন হল, আপনি চার রাকাআত নামায পড়বেন। প্রতি রাকাআতে সূরা ফাতিহা ও অন্য একটি সূরা পড়বেন। প্রথম রাকাআতে যখন কিরাআত পড়া শেষ করবেন তখন দাঁড়ানো অবস্থায় ১৫ বার বলবেন-

سُبْحَانَ اللَّهِ وَالْحَمْدُ لِلَّهِ وَلَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَاللَّهُ أَكْبَرُ

এরপর রুকুতে যাবেন এবং রুকু অবস্থায় তা (উক্ত দুআটি) ১০ বার পড়বেন। এরপর রুকু থেকে মাথা উঠাবেন এবং তা ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদায় যাবেন। সিজদারত অবস্থায় তা ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদা থেকে মাথা উঠাবেন অতঃপর তা ১০ বার পড়বেন। এরপর আবার সিজদায় যাবেন এবং সিজদারত অবস্থায় ১০ বার পড়বেন। এরপর সিজদা থেকে মাথা উঠাবেন এবং ১০ বার পড়বেন। এ হলো প্রতি রাকাআতে ৭৫ বার। আপনি চার রাকাতেই অনুরূপ  করবেন। যদি আপনি প্রতিদিন আমল করতে পারেন, তবে তা করুন। আর যদি না পারেন, তবে প্রতি জুমআয় একবার। যদি প্রতি জুমআয় না করেন তবে প্রদি মাসে একবার। আর যদি তাও না করেন তবে জীবনে একবার।–সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ১২৯৯; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ১৩৮৭; সুনানে বাইহাকী, হাদীস নং ৫১১৩; সহীহ ইবনে খুযাইমাহ, হাদীস নং ১২১৬; মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদীস নং ১১৯২

হাদীসটির সনদ সহীহ। ইমাম ইবনে খুযাইমাহ, হাফেয আবূ বকর আজুররী, হাফেয আবুল হাসান মাকদিসী, এমনকি সালাফী ভাইদের অন্যতম অনুসরনীয় শায়েখ নাছিরুদ্দীন আল বানীও হাদীসটিকে সহীহ বলেছেন। (দেখুন আততারগীব ওয়াত তারহীব ১/১৬৫)

 831,608 total views,  827 views today