প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ্ মুসলিম নারী ও পুরুষের লেবাস-পোষাক এর মুলনীতি কয়টি ও কি কি?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ্
মহিলা পুরুষের পোশাকের জন্য শরীয়াত কিছু মূলনীতি নির্ধারণ করে দিয়েছে। এগুলোর প্রতি লক্ষ্য রেখে যে কোন ধরণের পোশাক পরিধান করা যায়। নিম্নে মূলনীতিগুলো দেওয়া হল-
১। ফাসেক ও বিধর্মী তথা অমুসলিমদের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ পোশাক পরিধান না করা।
২। পুরুষদের জন্য মহিলা সদৃশ এবং মহিলাদের জন্য পুরুষ সদৃশ কাপড় পরিধান না করা।
৩। পোশাক এমন খাট, পাতলা বা টাইটফিট না হওয়া যাতে সে সকল অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ঢেকে রাখা ওয়াজিব সেগুলো প্রকাশ পায় বা আকৃতি ফুটে উঠে।
৪। পুরুষদের জন্য খালেছ রেশমের (সিল্ক) কাপড় পরিধান না করা।
৫। পুরুষদের জন্য জামা, পায়জামা, লুঙ্গি, জুব্বা, চাদরসহ সকল প্রকার পোশাক টাখনুর উপরে রাখা।
৬। নিজ আর্থিক সামর্থ্য থেকে বেশী দামের কাপড় পরিধান না করা।
৭। সম্পদশালী হওয়ার পরেও এমন নিম্নমানের পোশাক পরিধান না করা যাতে মানুষ তাকে অসহায় গরীব মনে করে।
৮। অহংকার, রিয়া বা লৌকিকতার উদ্দেশ্য কাপড় পরিধান না করা।
৯। পোশাক পরিস্কার-পরিছন্ন রাখা।
১০। পুরুষের জন্য নিসফে ছাক অর্থাৎ পায়ের গোছার অর্ধ পর্যন্ত, সর্বনিম্ন পায়ের টাখনু পর্যন্ত লম্বা হওয়া সুন্নাত।
১১। সাদা রং এর কাপড় পরিধান করা মুস্তাহাব। তবে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মাঝে মধ্যে কাল, সবুজ ইত্যাদি রংয়ের কাপড়ও ব্যবহার করেছেন। তাই মাঝে মধ্যে সাদা ছাড়াও অন্যান্য রংয়ের কাপড় পরিধান করা মুস্তাহাব। তবে পুরুষদের জন্য জাফরান, কুসুম-লাল ও নিরেট লাল রংয়ের কাপড় পরিধান না করা চাই।
উপরোক্ত মূলনীতিগুলো বজায় রেখে যে কোন পোশাক পরিধান করলে তা সুন্নাতী ও শরীয়াত সম্মত পোশাক বলে গণ্য হবে।
সূত্রসমূহঃ সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ৫৪২৬; সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ৪০৬৩; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ১৯০৪; সুনানে নাসায়ী, হাদীস নং ৫৩৪৬; রদ্দুল মুহতার ৯/৫০৫ (যাকারিয়া)

 821,535 total views,  1,187 views today