প্রশ্ন : হযরত আমি এই ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারলাম যে ওতনে ইকামা দুইটা হতে পারে। এখন আমার প্রশ্ন হল ওতনে ইকামার মাঝে থাকলে এর আশে পাশের এলাকায় কি আমি কসর পড়বো নাকি সম্পুর্ণ নামায? যেমন আমার বর্তমান বসবাস ঢাকা। আর মাঝে মাঝে বেড়াতে যাই ময়মনসিংহ। সেখানে আমার দাদা দাদি আছেন। মাসআলা অনুযায়ী এই দুইটাই আমার ওতনে ইকামাত। এখন আমি যদি ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ বা এর আসে পাশের জেলায় যাই তাহলে কি আমি কসর পড়ব না পরিপূর্ন নামায আদায় করব? আশা করি জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর :

তানকীহ (প্রশ্ন স্পষ্টকরণ): ময়মনসিংহ কি আপনাদের গ্রামের বাড়ি? সেখানে কি আপনাদের জায়গা ও বাড়ি রয়েছে? সেখানে কি ভবিষ্যতে স্থায়ীভাবে বসবাসের নিয়ত রয়েছে? অথবা তা কি আপনারা নিজেদের স্থায়ী বাড়ি হিসেবে বহাল রেখেছেন?
এগুলো জানার পরে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হবে ইংশাআল্লাহ।
তানকীহের জবাবঃ জি হযরত সেখানে আমাদের গ্রামের বাড়ি। আর ভবিষ্যতে ওখানে স্থায়ীভাবে থাকার ইচ্ছা আছে। এখনো বহাল আছে।
মূল উত্তরঃ তাহলে ময়মনসিংহ আপনার জন্য ওয়াতনে আছলী হবে আর ঢাকা ওয়াতনে ইকামত। কাজেই আপনি ময়মনসিংহ থেকে ৪৮ মাইলের কম দুরুত্তে কোথাও গেলে সেখানে পুরো নামায আদায় করবেন। অনুরূপভাবে আপনি ঢাকা থেকে ৪৮ মাইলের কম দুরুত্তে কোথাও গেলে সেখানেও পুরো নামায আদায় করবেন।
তবে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার সময় ঢাকা-ময়মনসিংহের দুরুত্ত কমপক্ষে ৪৮ মাইল হলে পথিমধ্যে কসর করবেন।
-ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/১৩৯; আসারুস সুনান পৃ: ২৬৩

 831,826 total views,  190 views today