প্রশ্ন : দুনিয়াবী কোন কাজ হাসিল করার উদ্দেশ্যে কি নামায পড়া যায়?

উত্তর :

হ্যাঁ, পড়া যায়। বরং মুমিন তো তার দ্বীনী ও দুনিয়াবী সকল (নেক) উদ্দেশ্যই নামায দ্বারা পূরা করার চেষ্টা করবে। হাদীস শরীফে আছে-
১। عن عثمان بن حنيف أن رجلا ضرير البصر أتى النبي صلى الله عليه و سلم فقال ادع الله أن يعافيني فقال إن شئت أخرت لك وهو خير وإن شئت دعوت فقال ادعه فأمره أن يتوضأ فيحسن وضوءه ويصلي ركعتين ويدعو بهذا الدعاء اللهم إني أسألك وأتوجه إليك بمحمد نبي الرحمة يا محمد إني قد توجهت بك إلى ربي في حاجتي هذه لتقضى اللهم فشفعه في
অর্থঃ হযরত উসমান ইবনে হুনাইফ (রাঃ) থেকে বর্ণিত, জনৈক অন্ধ ব্যক্তি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট এসে বলল, আপনি আল্লাহর কাছে আমার জন্য দুআ করুন, যাতে তিনি আমাকে রোগমুক্ত করেন। তিনি বললেন, তুমি চাইলে আমি দুআ করতে বিলম্ব করব, যা তোমার জন্য কল্যাণকর হবে। আর যদি তুমি চাও, তাহলে আমি এখনই তোমার জন্য দুআ করব। তখন সে বলল, দুআ করুন। তিনি তাকে উত্তমরূপে উযূ করে দুই রাকাআত নামায পড়তে বললেন। এবং এই দুআ করতে বললেন-
اللَّهُمَّ إِنِّي أَسْأَلُكَ وَأَتَوَجَّهُ إِلَيْكَ بِنَبِيِّكَ مُحَمَّدٍ نَبِيِّ الرَّحْمَةِ يَا مُحَمَّدُ إِنِّي تَوَجَّهْتُ بِكَ إِلَى رَبِّي فِي حَاجَتِي هَذِهِ فَتَقْضِي لِي اللَّهُمَّ شَفِّعْهُ فِيَّ
-সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ১৩৮৫; সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং ৩৫৭৮; সহীহ ইবনে খুযাইমা, হাদীস নং ১২১৯; মুস্তাদরাকে হাকেম, হাদীস নং ১৯০৯; মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং ১৭২৪০
২। عن أنس رضي الله عنه قال أن النبي صلى الله عليه و سلم قال يا علي ألا أعلمك دعاء إذا أصابك غم أو هم تدعو به ربك فيستجاب لك بإذن الله ويفرج عنك توضأ وصل ركعتين واحمد الله وأثن عليه وصل على نبيك واستغفر لنفسك وللمؤمنين والمؤمنات ثم قل اللهم أنت تحكم بين عبادك فيما كانوا فيه يختلفون لا إله إلا الله العلي العظيم لا إله إلا الله الحليم الكريم سبحان الله رب السموات السبع ورب العرش العظيم الحمد لله رب العالمين اللهم كاشف الغم مفرج الهم مجيب دعوة المضطرين إذا دعوك رحمن الدنيا والآخرة ورحيمهما فارحمني في حاجتي هذه بقضائها ونجاحها رحمة تغنيني بها عن رحمة من سواك
অর্থঃ হযরত আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, হে আলী, আমি কি তোমাকে এমন দুআ শিখাবো না, যখন তোমাকে কোন চিন্তা বা পেরেশানি স্পর্শ করবে তা দ্বারা দুআ করলে আল্লাহর হুকুমে তোমার দুআ কবূল করা হবে এবং তোমার পেরেশানি দূর হয়ে যাবে। তুমি উযূ করবে এবং দুই রাকাআত নামায পড়বে। অতঃপর আল্লাহ তাআলার হামদ ও ছানা পাঠ করবে। এরপর তোমার নবীর উপর দুরূদ পাঠ করবে এবং তোমার জন্য ও সকল মুমিন মুমিনাতের জন্য ইস্তেগফার করবে। তারপর (এই দুআ) বলবে-
اللهم أنت تحكم بين عبادك فيما كانوا فيه يختلفون لا إله إلا الله العلي العظيم لا إله إلا الله الحليم الكريم سبحان الله رب السموات السبع ورب العرش العظيم الحمد لله رب العالمين اللهم كاشف الغم مفرج الهم مجيب دعوة المضطرين إذا دعوك رحمن الدنيا والآخرة ورحيمهما فارحمني في حاجتي هذه بقضائها ونجاحها رحمة تغنيني بها عن رحمة من سواك
-আত তারগীব ওয়াত তারহীব, হাদীস নং ১০২০
উপরোক্ত দুটি হাদীস থেকে স্পষ্টভাবে বুঝে আসে যে, কেউ কোন বিপদ বা পেরেশানিতে পড়লে অথবা কারো কোন প্রয়োজন দেখা দিলে উযূ করে দুই রাকাআত নামায পরে হাদীসে উল্লেখিত বাক্যগুলো দ্বারা দুআ করবে। এতে তার পেরেশানি দূর হয়ে যাবে ইংশাআল্লাহ।

 822,979 total views,  976 views today