প্রশ্ন : আমার এলাকার এক ভাই, তার আম্মা গ্রামে থাকে তিনি শহরেই থাকেন। তার আম্মা তার জন্যে হুট করে বিয়ে ঠিক করছে। যাক ভালো কথা, বিয়ে ঠিক কিন্তু মেয়ে দেখার পর ভাই বলছে যে, তার মেয়েকে পছন্দ হয় নাই। কিন্তু প্রথমে একবার এই মেয়ের সাথে বিয়ে হবে না কথা ছিলো। কিন্তু ২য় বারের মত আবার বিয়ের কথা হয়। কিন্তু এখন ঐ ভাই যদি বলে যে, বিয়ে করবে না ঐ মেয়েকে তাহলে তার মা মনে কষ্ট পাবে। ঐ ভাই এর আব্বা নাই মা একা থাকে। তাই বিয়ে করাচ্ছে ছেলেকে। মা এর কথা হলো এই মেয়েকেই বিয়ে করতে হবে। ছেলের কোনো কথাই উনি শুনছেন না। এই ক্ষেত্রে ছেলে যদি মাকে কষ্ট দেয় বিয়ে না করে এই ক্ষেত্রে শরীয়তে কি বিধান? ভাই এর কি বিয়ে টা করা উচিৎ মা এর মন রক্ষার্থে নাকি করবে না?

উত্তর :

মায়ের জন্য এভাবে ছেলের উপর সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া উচিত নয়। কারণ সংসার তো ছেলেই করবে মেয়ের সাথে। এভাবে জোরপূর্বক বিবাহ দিলে পরবর্তীতে ফলাফল ভালো হয় না। কিছুদিন যেতে না যেতেই অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে যায়। তাই মায়ের উচিত ছেলের পছন্দের বিষয়টি বিবেচনা করা। আর ছেলেরও উচিত মায়ের পছন্দের বিষয়টি বিবেচনা করা। দশমাস গর্ভে ধারন করার পর তিলে তিলে কষ্ট করে একটি সন্তানকে বড় করেন মা। তাই সন্তানের বিবাহে মা কিছুটা অধিকার প্রয়োগ করবেন এটাই স্বাভাবিক।
মোটকথা, আমি এটাই বুঝাতে চেষ্টা করলাম উভয়ের সমন্বয়ের দ্বারা সামনে বাড়বে। ছেলের একান্তই পছন্দ না হলে মাকে ঠাণ্ডা মাথায় বুঝানোর চেষ্টা করবে। সংসার তো তাকেই করতে হবে। কাজেই তার পছন্দ না হলে সারাটা জীবন তার সাথে কিভাবে কাটাবে? হেকমতের সাথে বুঝালে ইংশাআল্লাহ মা বুঝে যাবেন।

 825,539 total views,  1,004 views today