প্রশ্ন : জনাব, আসসালামু আলাইকুম। আমার এক আত্মীয় (মেয়ে) বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় পরিপার্শ্বের চাপে রাগের মাথায় জিদ করে কাজি অফিসে গিয়ে রেজিস্ট্রেশান করে অন্য এক ছেলেকে বিয়ে করে। কিন্তু এখন সে আর সেই ছেলের সাথে সংসার করতে চাচ্ছে না। সেক্ষেত্রে কি তারা কাজি অফিসে/আদালতে না গিয়ে তিন তালাক বলার মাধ্যমে বা অন্য কোন উপায়ে বিবাহ বিচ্ছেদ করতে পারবে? উল্লেখ্য যে, তাদের বিয়ের ব্যপারে ছেলে বা মেয়ে কারও পরিবারই কিছু জানে না। আশা করি উত্তরটি প্রদান করে সহযোগিতা করবেন।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
যদি তাদের বিবাহ সহীহ হয়ে থাকে এবং পরস্পরে সংসার করতে আগ্রহী না হয় তবে ছেলে মেয়েকে পবিত্র অবস্থায় (হায়েযের সময় নয়) মৌখিকভাবে এক তালাকে রজয়ী দিবে। যেমন বলবে, আমি তোমাকে এক তালাক দিলাম। তালাকটি স্ত্রীর ঐ পবিত্রতার মধ্যে দিবে, যে পবিত্রতায় স্বামী-স্ত্রীর শারীরিক সম্পর্ক হয়নি। এরপর স্ত্রীর পূর্ণ তিন হায়েয অতিক্রান্ত হলে সে তার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে।
উল্লেখ্য যে, স্ত্রীর হায়েযের সময় অথবা কোন পবিত্রতায় স্ত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক হলে উক্ত অবস্থাদ্বয়ে তালাক দেওয়া জায়েয নয়। অনুরূপভাবে একসাথে তিন তালাক দেওয়াও জায়েয নয়। যদিও তালাক দিলে তা পতিত হয়ে যায়। আর তালাক দেওয়ার জন্য কাজী অফিস বা আদালতে যাওয়া জরুরী নয়।-সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ৩৭৩২; সুনানে নাসায়ী, হাদীস নং ৩৩৯৫; মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং ১৭৭৪৩; মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক, হাদীস নং ১০৯২১

 831,086 total views,  305 views today