প্রশ্ন : স্ত্রীর সাথে একবার ঝগড়া লেগেছিল। তখন সে আমার কাছে তালাক চায়। আমিও তখন পরিস্থিতি ঠান্ডা করার জন্য তাকে বলেছি “তোমাকে ছেড়ে দিলাম” সে বলল, এভাবে হবে না, তালাক বলতে হবে। আমি তখন তাকে বলেছি, যাও তালাক দিলাম। এর পর এক মাসের মাথায় আমরা আবার একসাথে থেকেছি। আমিও তাকে মৌখিকভাবে ফিরিয়ে নিয়েছি। দুই বছর পর আমাদের আর বনিবনা হচ্ছিল না। আমার সিদ্ধান্ত নেই আলাদা হয়ে যাওয়ার। তারপর আমি তাকে বলি, তোমাকে এক তালাক দিলাম। আমরা আলাদা হয়ে যাই। তার ইদ্দত পালনের সময় একদিন কোন কারনে আমরা রাতে দেখা করি এবং একজন আরেকজনকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাই। ঐ রাতের পর থেকে আমরা আলাদাই আছি। এবং আমাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করি নাই। ভবিষ্যতেও আমরা আলাদাই থাকতে চাই। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, ইদ্দতের মাঝে জড়িয়ে ধরে চুমু খাওয়াতে কি বিবাহ আবার আগের পর্যায়ে চলে গেছে? বিস্তারিত হুকুম বললে উপকৃত হব খুব।

উত্তর :

প্রিয় দ্বীনী ভাই, প্রশ্নের উত্তর দিতে দেরি হওয়ায় আন্তরিকভাবে দুঃখিত।
প্রশ্নের বর্ণনা অনুযায়ী আপনার স্ত্রীর উপর তিন তালাকে মুগাল্লাযা পতিত হয়ে তিনি আপনার জন্য স্থায়ীভাবে হারাম হয়ে গিয়েছেন। শরয়ী হালালাহ ব্যতীত আপনাদের ঘর সংসার করা সম্পূর্ণ নাজায়েয ও হারাম। শরয়ী হালালার সূরত হল, আপনার স্ত্রীর ইদ্দত পার হবার পর অন্য কোন পুরুষ তাকে বিবাহ করবে। এরপর তাদের মাঝে শারীরিক সম্পর্ক (মেলামেশা) হওয়ার পর সে স্বেচ্ছায় আপনার স্ত্রীকে তালাক দিবে। অতঃপর তার ইদ্দত পার হবার পর আপনি চাইলে তার সাথে নতুনভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেন।
আর তিন তালাক পতিত হওয়ার পর তার সাথে দেখা করে জড়িয়ে ধরা অন্যায় হয়েছে। এজন্য আল্লাহ তাআলার নিকট খালেছভাবে তাওবা করে নিবেন।–সূরা বাকারাহ, আয়াত ২৩০; সহীহুল বুখারী, হাদীস নং ৫৭৯২; রদ্দুল মুহতার ৩/২৯৯; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/৪৭৩; মাজমূআতুল ফাতাওয়া ২/৬৮

 820,912 total views,  564 views today