প্রশ্ন : আসসালামুআলাইকুম, আমি তালাক সম্পর্কে শরীয়তের মাসআলা জানতে চাই। ১। কেউ যদি বলে “(তাহলে আমি মনে মনে বললাম আমি যেই মেয়েকেই বিবাহ করব সেই তালাক তাহলে তো তালাক হবে না)” ব্রাকেটের কথাটি বলার দ্বারা কি তালাক হবে? ২। একদিন আমি মোনাজাতে দোয়া করছিলাম। এ সময় এ কথাটি (“আমি যেই মেয়েকেই বিবাহ করব সেই তালাক”) শব্দটি আমার মনে প্রবল ভাবে এসেছিল। দোয়া শেষ করার পর আমার মনে হচ্ছিলো আমি উক্ত শব্দটি বলে ফেলেছিলাম। একবার মনে হচ্ছে দোয়া করছিলাম আর একবার মনে হচ্ছিলো উক্ত বাক্যটি বলেছি। আমি সন্দিহান। এক্ষেএে সমাধান কি? ৩। একদিন আমাদের হুজুরকে এভাবে জিজ্ঞাসা করেছিলাম (“আমি মনে মনে বললাম আমি যেই মেয়েকেই বিবাহ করব সেই তালাক বলেছিলাম এখন মাসালা কি”) এভাবে জিজ্ঞাসা করার দ্বারা কি কোন সমস্যা হবে? এভাবে জিজ্ঞাসা করার দ্বারা কি এই বাক্যটি “আমি যেই মেয়েকেই বিবাহ করব সেই তালাক”সত্যায়ন হবে? ৪। ঘুমের ঘরে অথবা ঘুমের আমেজ থাকা অবস্থায় অথবা এমন অবস্থায় যে শরীর নিয়ন্ত্রণে নেই এক্ষেত্রে যদি বলে “আমি যেই মেয়েকেই বিবাহ করব সেই তালাক “তাহলে কি তালাক হবে? ৫। একই বৈঠকে অথবা একই মজলিসে যদি বর কনেকে সাক্ষীদের সামনে বলে আমি তোমাকে বিবাহ করলাম আর কনে যদি বলে কবুল করলাম তাহলে তো বিবাহ হয়ে যায়। এভাবে বিবাহ হয়ে যাবার পর বর যদি কনেকে সাথে সাথে আবার এভাবে বলল আমি তোমাকে বিবাহ করলাম, কনে বলল আমি কবুল করলাম। এভাবে বরের দুই বার প্রস্তাব দেওয়া ও কনের এভাবে দুই বার কবুল বলায় বিবাহ কি দোহরানো হিসাবে গন্য হবে? বিবাহ দোহরানোর এ পদ্ধতি কি সঠিক?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। হ্যাঁ, উক্ত কথা মুখে বলে থাকলে আপনি যখনি কাউকে বিবাহ করবেন তখনি সে তালাক হবে।–ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/৪১৫; আদ্দুররুল মুখতার ৩/৩৫২, ৩৫৩
২+৪। ১ নং প্রশ্নের উত্তর জানার পর এগুলো জেনে কোন ফায়েদা নেই।
৩। না, এভাবে জিজ্ঞেস করাতে কোন সমস্যা নেই।
৫। একবার বিবাহ হবার পর পুনরায় দোহরানোর কি প্রয়োজন? এর ফায়েদাই বা কি?

 820,869 total views,  521 views today