প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম, হুজুর অযু সম্বন্ধে কিছু প্রশ্ন আছে ১। প্রচুর শীতে ঠান্ডা পানি দিয়ে অযু করলে কি অন্য সময়ের থেকে বেশি সওয়াব পাওয়া যাবে? ২। অযু করার কিছু সময় পর সন্দেহ  হলো অযু চলে গিয়েছে হয়তো। তখন আবার অযু করলে গুনাহ্ হবে কি? ৩। অযুর দোয়া পড়া কি বাধ্যতামূলক? অনেকে অযুর দোয়া পারে না তারা তখন কি বলে অযু করবে?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

১। হ্যাঁ, হাদীসের আলোকে এমনটিই বুঝে আসে।–সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ৬১০

২। না, গুনাহ হবে না। বরং সন্দেহ হলে উযূ করে নেওয়াই মুস্তাহাব।

৩। না, বাধ্যতামূলক নয়। বরং মুস্তাহাব। কাজেই কেউ কোন দুআ না পড়ে উযূ করলেও উযূ হয়ে যাবে।

উযূর দুআ হল, শুরুতে বিসমিল্লাহ পড়া। এক রেওয়ায়েতে রয়েছে, যে ব্যক্তি বিসমিল্লাহি ওয়াল হামদুলিল্লাহ বলে উযু শুরু করবে ফেরেশতারা তার জন্য ছাওয়াব লিখতে থাকবে যতক্ষন তার উযূ ছুটে না যায়। (সুনানে তিরিমিজী, হাদীস নং ২৫; আল-মুজামুস সগীর, হাদীস নং ১৯৬)

উযূর মাঝে এ দুআ পড়া-

اللَّهُمَّ اغْفِرْ لي ذَنْبِي، وَوَسِّعِ لِي فِي دَارِي، وَبارِكْ لِي فِي رِزْقِي

(নাসায়ী, আসসুনানুল কুবরা, হাদীস নং ৯৯০৮)

আর উযূ শেষ করে কালিমায়ে শাহাদাত পড়া-

أشْهَدُ أنْ لا إله إِلاَّ اللَّهُ وَحْدَهُ لا شَرِيك لَهُ، وأشْهَدُ أنَّ مُحَمَّداً عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ

(সুনানে আবূ দাউদ, হাদীস নং ১৬৯)

অতঃপর এ দুআ পড়া –

اللَّهُمَّ اجْعَلْنِي مِنَ التَوَّابِينَ، واجْعَلْني مِنَ المُتَطَهِّرِينَ،

হাদীস শরীফে আছে, যে ব্যক্তি উত্তমরূপে উযূ করে উক্ত দুআ পড়বে তার জন্য জান্নাতের আটটি দরজা খুলে যাবে। সে যেটা দিয়ে ইচ্ছা প্রবেশ করতে পারবে।(সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং ৫৫)

 823,657 total views,  528 views today