প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম, হযরত মেহেরবানী করে আমার উত্তরটা একটু তাড়াতাড়ি দিবেন কারণ আমি কিছুদিনের মধ্যে জমি কিনতে চাচ্ছি, আপনার উত্তরের অপেক্ষায় রইলাম। আল্লাহ তায়ালা আপনাকে সুস্থতার সাথে দীর্ঘ নেক জিন্দেগী দান করুন। ১। আমি ১০ কাঠা জমি কিন্তু চাই। যার কাছ থেকে কিনবো আমি জানি তিনি উক্ত সকল জমিই সুদের টাকা দিয়ে কিনেছিল। তাই উক্ত জমি কেনা কি জায়েয হবে? ২। অন্য আরেকজনের ১০ কাঠা জমি আছে কিন্তু তিনি ২০% মতো সুদের টাকা আছে আর বাকী টাকা হালাল টাকা দিয়ে কিনেছিলো। উক্ত ক্ষেত্রে কি পুরো জমি কেনা যাবে? অথবা ৫ কাঠা কেনা যাবে? ৩। অনেকেই তো হারাম টাকা দিয়ে জমি কিনেছিলো, সেক্ষেত্রে কি যাচাই করে কিনতে হবে হরাম না হালাল টাকায় কিনেছে? না জেনে যদি কিনি পরে যদি জানতে পারি যে হারাম টাকায় কিনেছে তাহলে কি করবো?

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম
১। না।
২। পুরো জমি কেনা জায়েয হবে না। ৫ কাঠা কেনা জায়েয হবে।
৩। কারো সাথে লেনদেন করতে হলে তার আয় বা পণ্য হারাম কিনা এটা যাচাই করা জরুরী নয়। কোন কিছু জানা না থাকলে লেনদেন করা সম্পূর্ণ জায়েয। তবে যদি কোনভাবে জানা যায় কারো অর্ধেক বা অধিকাংশ আয় হারাম তবে তার সাথে লেনদেন করা জায়েয নয়। তবে অর্ধেক বা অধিকাংশ আয় হারাম হওয়া সত্ত্বেও যদি জানা যায় যে, যে জিনিসের লেনদেন করা হচ্ছে তা বৈধ তবে জায়েয।
তবে যদি কখনো ক্রয় করার পরে পণ্য হারাম হওয়া জানা যায় সেক্ষেত্রে তা বিক্রেতার নিকট ফিরিয়ে দিবে। যদি তা অসম্ভব হয় বা বিক্রেতা ফিরিয়ে নিতে অস্বীকৃতি জানায় তাহলে তা কোন অমুসলিমের নিকট বিক্রি করে দিবে।
সুত্রসমূহঃ ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৬/৩৯০, ৫/৩৪২; বাযযাযিয়া ৬/৩৯০; কাযীখান ৩/৪০০; রদ্দুল মুহতার ৫/৯৮; ফাতাওয়া মাহমূদিয়া ১৮/৪৩৩

 833,826 total views,  1,041 views today