প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম১। সন্তান হবার আগে বা পরে স্ত্রীর বুকের দুধ পান করলে অথবা দুধের মত নোনতা কষ জাতীয় কিছু পান করলে কি গুনাহ হবে? স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে কোনো প্রভাব পড়বে কি? বিস্তারিত জানাবেন।২। মাছ, হাঁস-মুরগি, গরু, ছাগল, খাশি ইত্যাদি হালাল প্রানীর কোন কোন অংশ খাওয়া হারাম? কাঁকড়া, শামুক, তিমি, অক্টোপাস এসব কি খাওয়া যাবে? চিংড়ি, লবস্টার এগুলো কি মাকরূহ? বিস্তারিত জানাবেন।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

১। সন্তান হবার আগে বা পরে স্ত্রীর বুকের দুধ ইত্যাদি পান করা এবং করানো হারাম। তবে মেলামেশার সময় উত্তেজনা বশতঃ স্ত্রীর স্তন মুখে নিলে গোনাহগার হবে না। এমতাবস্থায় মুখে দুধ চলে গেলে থুথু ফেলে দিবে। তবে হারাম হওয়া সত্ত্বেও কেউ স্ত্রীর দুধ পান করলে বৈবাহিক সম্পর্কে এর দ্বারা কোন প্রভাব পড়বে না।– সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং ১১৫২; আদ্দুররুল মুখতার ৩/২১১; তাবয়ীনুল হাকায়েক ২/৬৩৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/৩৪৩; ৩/৩৮৯।

২। হালাল প্রানীর সাতটি অংশ খাওয়া নিষিদ্ধ। যথা-১। পুরুষ লিঙ্গ ২। স্ত্রী লিঙ্গ  ৩।মুত্র থলি ৪। পিত্ত ৫। অণ্ডকোষ ৬। চামড়ার নীচের টিউমারের মত উঁচু গোশত ৭।প্রবাহিত রক্ত।

এছাড়া অন্যান্য অঙ্গ খাওয়া হালাল।

কাঁকড়া,শামুক,তিমি,অক্টোপাস ইত্যাদি খাওয়া জায়েয নয়। তবে চিংড়ি,লবস্টার (গলদা চিংড়ি)খাওয়া জায়েয।– সূরা আনআম, আয়াত ১৪৫; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং ৩৩১৪ ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৩/১১৪; আল বাহরুর রায়েক ৮/৪৮৫; হাশিয়ায়ে তাহতাবী ৪/৩৬০; ইমদাদুল ফাতাওয়া ৪/১১৮।

 828,370 total views,  885 views today