প্রশ্ন : আসসালামু আলাইকুম। স্টক বিজনেস কি জায়েজ? যেমন: ৭লাখ টাকার শুটকি কিনে রাখলাম, ২০দিন পর দাম বেড়ে গেলে বেচে দিলাম। ৪লাখ টাকার ভুট্টা কিনে রাখলাম ১০দিন পর দাম বেড়ে গেলে বাজারে বেচে দিলাম। এই ব্যবসা জায়েয? একটু কষ্ট করে বিস্তারিত জানাবেন।

উত্তর :

ওয়া আলাইকুমুস সালাম

স্টক ব্যবসার (যাকে ইহতিকার বা গুদামজাত বা রাখি মালের ব্যবসা বলা হয়) জায়েয নাজায়েয উভয় সূরতই রয়েছে। যদি মানুষ বা প্রাণীদের প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও জিনিসপত্র সংশ্লিষ্ট এলাকা থেকে ক্রয় করে এমনভাবে স্টক করে রাখা হয় যে যার দ্বারা মানুষ বা প্রাণীর ক্ষতি হয় তবে এই স্টক মাকরূহে তাহরীমী। যেমন কেউ মানুষ বা প্রাণীদের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও জিনিসপত্র সংশ্লিষ্ট এলাকা থেকে ক্রয় করে এমনভাবে স্টক করে রাখল যে, বিশেষ প্রয়োজনের মুহূর্তেও (অর্থাৎ যখন উক্ত মালের অভাবে মানুষ ও অন্য প্রাণীদের কষ্ট হয় বা দুর্ভিক্ষের সময়) আরো বেশি মুনাফার আশায় বিক্রি করল না।এটাই নিষিদ্ধ গুদামজাত।এর দ্বারা উদ্দেশ্য হল মাল আটকিয়ে রেখে জিনিসপত্রের মূল্য প্রচুর বৃদ্ধি পেলে বা দুর্ভিক্ষ শুরু হয়ে গেলে মানুষ ও প্রাণীদের দুঃখ, কষ্ট ও অসহায়ত্বকে হাতিয়ার বানিয়ে নিজে লাভবান হওয়া।এটা শরীআতে নাজায়েয।

তবে কেউ যদি-

১।নিজের উৎপাদিত প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও জিনিসপত্র জমা করে রাখে বা

২।দূরবর্তী এমন এলাকা থেকে প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও জিনিসপত্র ক্রয় করে এনে জমা করে রাখে যেখান থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকায় তা সাধারণত আমদানি করা হয় না বা

৩। নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী ও জিনিসপত্র ছাড়া অন্য কিছু জমা করে রাখে

তবে তা নাজেয়েয গুদামজাত বা ইহতিকার এর মধ্যে পড়বে না।কিন্তু এমতাবস্থায়ও যদি মানুষ বা প্রাণীদের বিশেষ প্রয়োজন দেখা দেয় তবে সম্পদ আটকিয়ে না রেখে ন্যায্য মূল্যে বিক্রয় করাই ইসলাম ও মনুষ্যত্বের দাবী।–সহীহ মুসলিম, হাদীস নং ৪২০৭; সুনানে তিরমিজী, হাদীস নং ১২৬৭; তাকমিলাতু ফাতহিল মুলহিম ১/৬০৬-৬০৮; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৩/২১৩; আল বাহরুর রায়েক ৮/২০১-২০২; ইমদাদুল ফাতাওয়া ৩/১৯।

 825,763 total views,  123 views today